মঙ্গলবার, নভেম্বর 24, 2020

ছোট্ট রদবদলেই দীপাবলিতে সেজে উঠবে ঘর
ছোট্ট রদবদলেই দীপাবলিতে সেজে উঠবে ঘর

ছোট্ট রদবদলেই দীপাবলিতে সেজে উঠবে ঘর

  • scoopypost.com - Nov 13, 2020
  • কালীপুজো মানেই আলোর উত্সব। দীপাবলি মানেই অনেকখানি খুশি। কোভিড পরিস্থিতিতে দমবন্ধ ভাব যতই থাক, আনন্দ তো মনের আগল খুলে বের হবেই। তবে, বাজি নয়, আলো আর ভালোবাসায় সাজুক আপনার ঘর। সামান্য একটু যোগ-বিয়োগ। আর তাতেই খুব তাড়াতাড়ি বদলে যাবে আপনার বাড়ি।কীভাবে, রইল টিপস।

    প্রথমে ঠিক করে নিন কীভাবে ঘর সাজাতে চান। ফুল, মোমবাতি, ঘরোয়া কাচের বাসনই কিন্তু অন্য মাত্রা যোগ করতে পারে আপনার ঘরে। ধরুন কোনও সময় বেড়াতে গিয়ে ঝিনুক, পাথর কুড়িয়ে এনেছিলেন। কিম্বা বাড়িতে থাকা কফি বিনস। সেগুলোই কিন্তু হতে পারে আপনার ঘর সাজানোর উপকরণ।

    কাচের পাত্রে ফুলের যোগ

    স্বচ্ছ কাচের গ্লাস, বাটি, ট্রে আমাদের ঘরেই থাকে। বের করে ফেলুন সেই সব। বাজার থেকে কিনে আনুন কিছু শীতকালীন ভালো ফুল। বড় একটি কাচের পাত্রে জল ঢেলে তাতে ভাসিয়ে দিন রকমারি জারবেরা কিম্বা জিনিয়া। আর তেমন ফুল না পেলে গোলাপেই হবে কাজ। পাপড়ি খুলে জলে ভাসিয়ে কয়েকটা ভাসমান মোমবাতি তার মধ্যে দিয়ে দিন। মোমগুলো জ্বালালেই দেখবেন স্নিগ্ধ আলোয় ভরছে ঘর। বাড়তি পাওনা সুগন্ধ।

    স্বচ্ছ কাচের লম্বাটে ফুলদানি নিন। তাতে ফুল গাঁথার কাঁটা দিয়ে একটা বা দুটো বড় সুন্দর ফুল ডাঁটি সহ আটকে দিন। কাঁটাটা ঢাকতে নুড়ি পাথর, ঝিনুক কিছু নীচের দিকে দিয়ে দিন। ফুলদানি পুরোটা সাবধানে জলে ভরে দিন যাতে ফুল জল ডুবে যায়। ওপর থেকে ভাসিয়ে দিন মোমবাতি।

    গ্লাসে মোমের আলো

    ওয়াইন গ্লাস থাকলে সুন্দর কোনও ফুল তার মধ্যে ঢুকিয়ে উল্টো করে দিন। উল্টো দিকে পছন্দমতো মোমবাতি সাজিয়ে রাখুন।

    আবার কফি বিনস কাচের পাত্রে সাজিয়ে মোমবাতি জ্বালিয়ে দিতে পারেন।

    বাজারে নানা ধরনের ক্যান্ডেল হোল্ডার পাওয়া যায়। সেগুলোর মধ্যেও মোম জ্বালালে খুব সুন্দর লাগবে।

    মাটির লণ্ঠনে জ্বলবে আলো

    কালীপুজোর আগে মাটির রকমারি প্রদীপ মেলে। খুব সস্তাতেই পাওয়া যায় মাটির হ্যারিকেন বা লণ্ঠন। তার মধ্যেই প্রদীপ জ্বালিয়ে বারান্দায় ঝুলিয়ে দিতে পারেন।

    দীপাবলির ফুলসজ্জা

    বড় কোনও ফুলদানি মাঝখানে রেখে তার চারপাশে গাঁদার মালা বা কুঁচো ফুল দিয়ে সাজাতে পারেন।

    ফুল কুঁচিয়ে স্বস্তিক চিহ্ন তৈরি করে তার মধ্যে মাটির প্রদীপ জ্বালিয়ে দিলেও দেখতে সুন্দর লাগবে।

    গাঁদার মালা বা অন্য কোনও ফুলের মালা দিয়ে আল্পনার মতো করে মেঝে সাজিয়ে তুলুন।

    রঙ্গোলি

    দিওয়ালিতে অবশ্যই বাড়তি রং আনতে পারে রঙ্গোলি। ইদানীং সহজে রঙ্গোলি বানানোর জন্য নানা ধরনের ছাঁচ পাওয়া যায়।দশকর্মা ভাণ্ডার সহ বিভিন্ন দোকানে অল্প দামেই মেলে রঙ্গোলির রং।ইউটিউব দেখে খুব সহজে তৈরি করে ফেলুন পছন্দের রঙ্গোলি।তার মাঝে দিন প্রদীপ।