সোমবার, নভেম্বর 30, 2020

আন্টার্কটিকায় নাৎসি বাহিনীর জাহাজ !
আন্টার্কটিকায় নাৎসি বাহিনীর জাহাজ !

আন্টার্কটিকায় নাৎসি বাহিনীর জাহাজ !

  • scoopypost.com - Aug 11, 2020
  • আন্টার্কটিকায় ছিল হিটলারের নাৎসি বাহিনীর গোপন ঘাঁটি। দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের সময় সেই গোপন ঘাঁটিতে ভিনগ্রহের প্রাণীর সঙ্গে মানুষের মিলনে নয়া প্রজাতির শঙ্কর মানুষ তৈরির চেষ্টা চালানো হয়েছিল। এই জল্পনা উস্কে দিয়েছে আন্টার্কটিকা তটের ১০০ মাইল দূরে নিউজিল্যান্ডের দক্ষিণে একটি ৪০০ ফুট জাহাজ আবিষ্কার করে ফেলেছেন গুগল আর্থ ব‍্যবহারকারীরা। ইউটিউবে এই বিশালাকার জাহাজের ছবি ও ভিডিও প্রথম পোস্ট করেছেন MBB333 নামের এক ইউটিউব ব‍্যবহারকারী যিনি নিজেকে ' আর্থ ওয়াচম‍্যান ' বলে পরিচয় দেন। তাঁর ওয়েবসাইটে তিনি জানিয়েছেন, " দশ বছরের বেশি সময় ধরে পর্যবেক্ষণ করতে গিয়ে আমাদের প্রিয় গ্রহ, এই পৃথিবীর সমস্ত বিষয়ের সঙ্গে পরিচিত হয়েছি। সৌরমণ্ডলে ভাসমান পৃথিবীর বল, মহাশূন্যের আবহাওয়ায় পৃথিবীর উপর প্রভাব এবং অন্যান্য অনেক বিষয় জানতে পেরেছি। মহাসাগর থেকে মহাকাশ এবং এই দু'য়ের মাঝে যাবতীয় অস্তিত্বের পর্যবেক্ষণ করেছি। প্রাথমিকভাবে এই আবিষ্কার একটা বিশালাকার বরফের চাঁই মনে হলেও ত্রিমাত্রিক ছবিতে এটি একটি জাহাজ হিসেবে ধরা পড়েছে " তাঁর সাম্প্রতিককালের অন‍্যতম এই ভিডিও ইউটিউবে পোস্ট করার পরই আন্টার্কটিকা তটে বিশালাকার জাহাজ আবিষ্কারের সূত্র ধরেই দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের সময়কালে নাৎসি বাহিনীর চক্রান্তের তত্ত্ব দানা বেঁধেছে গুগল আর্থ ইউটিউব ব‍্যবহারকারীদের মনে।
    গ‍্যালাক্সি ম‍্যালাশির দাবি, " আমি ইতিমধ্যে হিটলারের গোপন ঘাঁটি আন্টার্কটিকায় ছিল বলেছি। অতিজাগতিক প্রাণীদের নিয়ে হিটলার এই গোপন ঘাঁটি চালাত। এই ভিনগ্রহীদের চোখ ছিল নীল। নয়া প্রজাতির শঙ্কর মানুষ তৈরি করতে ভিনগ্রহীদের ডিএনএ নমুনা নেওয়া হয়েছিল। "
    বি এইমস লিখেছেন, " দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের সময় নাৎসি বাহিনীর গোপন ঘাঁটি ছিল এখানে এবং জাহাজটি তারই নিদর্শন। "
    অন্য ধরনের চক্রান্তের গন্ধও পেয়েছেন অনেকে। শ‍্যানন মার্সি যেমন মনে করেন, " ক‍্যানারি দ্বীপে প্রবল ভূমিকম্পের আগে ধনী ও প্রভাবশালীদের নিরাপদ গন্তব্যে সরানোর উদ্দেশ্যে ওই জাহাজ কাজে লাগানো হয়েছিল। " এইসব চর্চায় বেজায় চটে গিয়ে টি হড লিখেছেন, " এসব বলে আন্টার্কটিকায় রাজনীতিক, মহাকাশচারী, ধর্মগুরুদের ডেকে আনা হচ্ছে কেন ? "
    অনেকে আবার আন্টার্কটিকায় প্রাচীন সভ‍্যতার খোঁজ মিলতে পারে আশা প্রকাশ করে আরও খোঁজাখুজির সওয়াল করেছেন। তাঁদের আশা, সমস্ত নিদর্শন এখনও বরফ চাপা পড়ে যায়নি।
    যদিও কেউ কেউ অন‍্যদের কল্পনাশক্তিকে ঠাট্টা করেছেন। তাঁরা লিখেছেন, " আপনারা পারেনও বটে ! কোনও ভিনগ্রহী প্রাণী ফিরবে না।" সব থেকে মজার কথা, বরফে মোড়া আন্টার্কটিকায় এসবের কোনও কিছু সম্ভব নয়। বিশালাকার বরফের চাঙড় জমে ও গলে ৪০০ ফুট জাহাজের আকৃতির মতো ধরা পড়েছে ত্রিমাত্রিক ছবিতে। দুয়ো বিশ্ব উষ্ণায়নকে।