বুধবার, এপ্রিল 14, 2021

শুরু ডার্বি উত্তাপ, ভিন্ন রঙ দুই শিবিরে
শুরু ডার্বি উত্তাপ, ভিন্ন রঙ দুই শিবিরে

শুরু ডার্বি উত্তাপ, ভিন্ন রঙ দুই শিবিরে

  • scoopypost.com - Nov 23, 2020
  • হাতে মাত্র চারটে দিন। তাই সপ্তাহের প্রথম দিন থেকেই ডার্বির প্রস্তুতি শুরু করলো দুই শিবির। একজন যখন ইতিহাসকে হাতিয়ার করে ডার্বির জন্য সৈন্য সাজাতে ব্যস্ত, অন্যজন ব্যস্ত ভুল ত্রুটি বিচার করে দল মেরামতিতে। আর এই দুই শিবিরের সৈন্য সাজানোর খেলায় ধিরে ধিরে পারদ চড়তে শুরু করলো ইতিহাসের ব্যতিক্রমি ডার্বির।

    ইতিহাস বলছে ইষ্ট-মোহন ডার্বি কোনও দিনও হয়নি সমর্থকদের বাদ দিয়ে। তবে করোনা আবহ মানুষকে পরিচয় করিয়েছে নিউ নর্মাল শব্দের সঙ্গে। তাই প্রথমবার ডার্বি হতে চলেছে নিউ নর্মাল ভাবেই অর্থাৎ দর্শকশূন্য ভাবেই। আগামী ২৭ নভেম্বর গোয়ার মাটিতে প্রথমবার আইএসএলের খেলায় হতে চলেছে এটিকে মোহনবাগান বনাম এসসি ইষ্টবেঙ্গল মহারণ। সেই ম্যাচকে ঘিরেই এবার দুই মেরুতে বাংলার দুই প্রধান।

    ডার্বিতে ইষ্টবেঙ্গলের হাতিয়ার আদতে কি হতে চলেছে তা স্পষ্ট নয় সমর্থকদের কাছে। তবে খেলোয়াড়দের ও সমর্থকদের উদ্বুদ্ধ করতে লালহলুদের এবারের হাতিয়ার অবশ্য ১৯২৫ সালের প্রথম জাতীয় লিগের ডার্বি। ১৯২৫ সালে জাতীয় লিগে প্রথমবারের জন্য মুখোমুখি হয় ইষ্টবেঙ্গল ও মোহনবাগান ক্লাব। সেই খেলায় নাপেল চক্রবর্তির করা গোলে প্রথমবার ডার্বি জয়ের ইতিহাস তৈরী করে মশালধারীরা। এবারও দেশের সর্বচ্চো লিগে প্রথমবার মুখোমুখি হচ্ছে দুই প্রধান। তাই ১৯২৫কেই ২০২০ ডার্বির টোটকা হিসাবে ছড়াতে চাইছে লাল হলুদ শিবির। আজ এসসি ইষ্টবেঙ্গলের পক্ষ থেকে সোস্যাল মিডিয়ায় ১৯২৫ সালের পেপার কাটআউট পোস্ট করে লেখা হয়, ওরা পারলে এরা নয় কেন? আর তাতেই ডার্বির উত্তাপে জ্বলে ওঠেন লাল হলুদ সমর্থকরা।

    তবে সোমবার ভিন্ন মেরুতে দেখা যায় এটিকে মোহনবাগানের কোচ হাবাসকে। প্রথম ম্যাচে জয় পাওয়ার পর এইদিন প্রথমবার প্র্যাকটিসে নামে এটিকে মোহনবাগান। তবে দিনের প্রথম থেকেই দলের আগেৈর ম্যাচের ভুল ত্রটি গুলোকেই শুধরে নেওয়ার চিন্তাধারা লক্ষ্য করা যায় হাবাসের মধ্যে। সেটপিসে বেশি জোর দেন মোহন কোচ। তবে আগের ম্যাচে প্রবিরের পারফর্মেন্স যে চোখে পরার মত ছিল না তা আগেই স্পষ্ট করেছিলেন হাবাস। আজ তাই প্রবিরকে নিয়ে আলাদা করে ক্লাস নিতেও দেখা যায় তাকে। আর এটাকেই ডার্বির টোটকা হিসাবে মনে করছেন বাগান সমর্থকরা।