শনিবার, মার্চ 06, 2021

জ‍্যাম এড়াতে উড়ন্ত গাড়ি
জ‍্যাম এড়াতে উড়ন্ত গাড়ি

জ‍্যাম এড়াতে উড়ন্ত গাড়ি

  • scoopypost.com - Aug 30, 2020
  • রাস্তা জ‍্যাম। একসার গাড়ি গর্জন ক‍রছে ভয়ঙ্কর সরীসৃপের মতো। বাস মিনিবাসে চালক, কন্ডাক্টরের সঙ্গে ঝামেলা। রেহাই নেই অবশ্য নিজস্ব গাড়ি বা মটরসাইকেল থাকলেও, রাস্তায় জ‍্যাম হলে তো সেই একই গেরো। কিন্তু রাস্তায় জ‍্যাম হলেও তা কাটিয়ে যদি উড়ে যাওয়া যেত ! সে ব‍্যবস্থাও আর অধরা থাকবে না প্রযুক্তির কল‍্যাণে। প্রযুক্তিতে পাঙ্গা হবে না জাপানের সঙ্গে। শুক্রবারই জাপানি সংস্থা স্কাইড্রাইভ একটি ভিডিও প্রকাশ করেছে। এই সংস্থার তৈরি ইলেকট্রিক ভার্টিকাল টেক অফ অ্যান্ড ল‍্যান্ডিং ( ইভিটিওএল) প্রযুক্তিতে তৈরি গাড়ি প্রথম মানুষ সওয়ারি নিয়ে সফলভাবে টেস্ট ড্রাইভ সম্পন্ন করেছে। জাপানি গাড়ি প্রস্তুতকারী সংস্থা টয়েটোর টেস্ট ফিল্ডে পরীক্ষামূলক এই উড়ানে সাফল্য পেল স্কাইড্রাইভ। মাটি থেকে দু'ফুট উঁচু দিয়ে মিনিট চারেক উড়ে গিয়েছে ওই সংস্থার তৈরি উড়ন্ত গাড়ি।
    স্কাইড্রাইভের প্রধান তোমোহিরো ফুকুযাওয়া জানিয়েছেন, সব কিছু ঠিক থাকলে ২০২৩ সালে তাঁদের সংস্থার তৈরি উড়ন্ত গাড়ি বাজারে ছাড়া হবে। ফ্লাইং কার বা উড়ন্ত গাড়ি তৈরির চেষ্টা অনেকদিন ধরেই চালিয়ে আসছিল স্কাইড্রাইভ। ২০১২ সালে এই সংস্থা জাপানি অটোমোবাইল জায়েন্ট টয়েটো, ইলেকট্রনিক্স সংস্থা প‍্যানাসনিক এবং ভিডিও গেম ডেভেলপার বান্ডাই নানকোর সঙ্গে ফ্লাইং কার তৈরির প্রকল্পে জোট বাঁধে। এই প্রকল্পের কাজ শুরু করলেও সাফল্য আসেনি। তিনবছর আগেও টেস্টড্রাইভ ব‍্যর্থ হয়েছিল। কিন্তু হাল ছাড়েননি স্কাইড্রাইভ। জোরকদমে কাজ শুরু করে। সম্প্রতি ডেভেলপমেন্ট ব‍্যাঙ্ক অফ জাপান থেকে ভারতীয় মুদ্রায় প্রায় ২৭১ কোটি আর্থিক সহায়তা পায় ওই সংস্থা। মানব সওয়ারি নিয়ে ওড়া সংস্থার তৈরি ফ্লাইং কার দৃশ‍্যত অনেকটা মটোরবাইকের দুহাতলের সঙ্গে মিল খুঁজে পাওয়া যায়। এই ইভিটিওএল
    - এ ৮ টি প্রপেলার রয়েছে।
    বিশ্বজুড়ে একদিন জ্বালানি অপ্রতুল হবে। এই আশঙ্কায় হাইব্রিড বা শঙ্কর গাড়ি তৈরি করা হচ্ছে বিশ্বের অনেক দেশে। ইভিটিওএল যেমন তৈরির চেষ্টা চালাচ্ছে তেমনই ডাচ সংস্থা প‍্যাল ভি ' রোডেবল এয়ারক্রাফট ' তৈরি করে ফেলেছে। আগামী বছর ডাচ সংস্থার তৈরি হাইব্রিড এই উড়ন্ত গাড়ি বাজারে ছাড়ার কথা ভেবেছে। আকাশে উড়তে সক্ষম, আবার রাস্তায় চলতে পারে এমন উড়ন্ত গাড়ির উৎপাদনে জোর দিয়েছে ডাচ সংস্থা।