বুধবার, এপ্রিল 14, 2021

ওজন কমাতে ডায়েট, গুড ফ্যাট বাদ গেলে কিন্তু বিপদ
ওজন কমাতে ডায়েট, গুড ফ্যাট বাদ গেলে কিন্তু বিপদ

ওজন কমাতে ডায়েট, গুড ফ্যাট বাদ গেলে কিন্তু বিপদ

  • scoopypost.com - Dec 04, 2020
  • মোটা হয়ে যাচ্ছেন বলে ডায়েট শুরু করেছেন? কী খাচ্ছেন প্রোটিন? কার্বোহাইড্রেট কমিয়েছেন? আর ফ্যাট! সেটা কি একেবারেই ছেড়ে দিয়েছেন? তাহলে জেনে রাখুন অসুস্থ আপনি হবেন তো বটেই, কমতে বাধ্য ত্বকের জৌলুসও।

    রোগা হতে গিয়ে বা মেদ ঝরাতে গিয়ে নিজের মতো ডায়েট প্ল্যান করতে গিয়ে যদি ফ্যাটযুক্ত খাবারে ইতি টেনে থাকেন, তাহলে ভুল করছেন। বাড়তি ওজন কমাতে ও শরীর সুস্থ রাখতে ডায়েট, এক্সারসাইজ যতটা জরুরি ততটাই জরুরি হল গুড ফ্যাট শরীরকে দেওয়া।

    কেন?

    আসলে আমাদের শরীরে অত্যন্ত প্রয়োজনীয় হল ফ্যাটি অ্যাসিড। আর এই ফ্যাটি অ্যাসিডের অন্যতম উত্সই হল ফ্যাটযুক্ত খাবার। কারণ, শরীর নিজে থেকে ফ্যাটি অ্যাসিড তৈরি করতে পারে না।বাইরে থেকে দিতে হয়। আর এই ফ্যাটি অ্যাসিড শরীরকে ভিটামিন এ, ডি ও ই শোষণ করতে সাহায্য করে। তাই যদি কেউ ডায়েট করতে গিয়ে শুধুই হাই প্রোটিন রেখে কার্বোহাইড্রেট ও ফ্যাট বাতিল করে দেন, তাহলে রোগা হওয়ার বদলে অসুস্থ হয়ে পড়বেন নিশ্চিত।

    কোন ফ্যাট রাখবেন ব্যালান্স ডায়েটে

    ফ্যাটযুক্ত খাবার মানে কিন্তু বাইরের পিজ্জা, বার্গার, রোল নয়।শরীরকে সেই ফ্যাটের জোগান দিতে হবে যেটা ভালো।

    সেই ভালো ফ্যাট কিসে পাবেন! ঘরে তৈরি ঘি,মাখনে। কাজু, আমন্ড, আখরোটে। পিনাট বাটারে। এছাড়াও রয়েছে তেলযুক্ত মাছ, ক্রিমড মিল্ক, ডিম সেদ্ধ-সহ আরও অনেক কিছুতে।

     জেনে নিন গুড ফ্যাটের জন্য কী খাবেন-

    অ্যাভাকোডা- ফলটি শুধু ফ্যাটই জোগায় না, এতে আছে পুষ্টিকর নানা উপাদান। তাই ফলের তালিকায় অবশ্যই অ্যাভাকাডো রাখুন।

    পিনাট বাটার-ওজন কমাতে ডায়েট করছেন ঠিকই, কিন্তু মাঝেমধ্যেই একপিস ব্রাউন ব্রেডে পিনাট বাটার লাগিয়ে খান। পিনাট বাটার প্রোটিন ও ফ্যাটের জোগান দেবে শরীরকে।

    নাটস- কাজু, আমন্ড, পেস্তা, পিনাট, আখরোট এই সব ধরনের বাদামই পুষ্টিতে ভরপুর।প্রোটিন, ভিটামিন, খনিজ, কার্বোহাইড্রট ও ফ্যাটের জোগানদাতা। রোগা হতে চান ঠিকই, থাকতে চান নিশ্চই গ্ল্যামারাসও। গ্ল্যামার আসে ব্যালান্স ডায়েট ও গুড ফ্যাট থেকে।

    ফুলফ্যাট মিল্ক- রোজের না হলেও সপ্তাহে এক থেকে দু’দিন ফুল ফ্যাট মিল্ক খাওয়া ভালো।

    কুসুম-সহ ডিম-যাঁরা ডায়েট করেন অনেকেই ওজন কমানোর জন্য কুসুম খান না। কিন্তু কুসুমও খুব জরুরি। ডিম পুরো খেলে শরীরে ফ্যাটের ঘাটতি মিটবে।

    বড়মাছ-বড় মাছে তেল থাকে। থাকে প্রচুর ফ্যাটি অ্যাসিড। তাই ছোট মাছ খেলেও বড় মাছ, সামুদ্রিক মাছ রাখুন খাদ্য তালিকায়।

    এক্সট্রা ভার্জিন অলিভ অয়েল-একট্রা ভার্জিন অলিভ অয়েল কিন্তু শরীরে জরুরি ফ্যাটের অন্যতম উত্স হতে পারে। সবজি, প্রোটিন স্যালাড বানালে অবশ্যই অলিভ অয়েল দিয়ে ড্রেসিং করুন।

    তিল ও চিয়া সিড-তিল, চিয়া সিড দুটোই গুড ফ্যাটের অন্যতম উত্স। খাবারে ছড়িয়ে দিন তিল ও চিয়া সিড। সেই খাবার খান।

    নারকেল ও নারকেল তেল-নারকেলও শরীরে ফ্যাটি অ্যাসিডের জোগানদাতা। তাই খাবারের তালিকায় অবশ্যই রাখুন নারকেল।

    ফুল ফ্যাট দই- ঘি, ফুল ফ্যাট দইও খেতে পারেন শরীরে ফ্যাটের জোগান দিতে।

    ডার্ক চকোলেট-ডার্ক চকলেট পরিমিত খান শরীর ভালো রাখতে।

    ফ্যাট অবশ্যই শরীরের জন্য জরুরি। কিন্তু তার মাপ রয়েছে।বাদাম খাওয়া ভালো বলে একদিনে প্রচুর খেলে কিন্তু লাভের চেয়ে ক্ষতি বেশি হবে।তাই গুড ফ্যাট যাতে আছে সেই সব খাবার পরিমিত খান নিয়ম করে।