মঙ্গলবার, নভেম্বর 24, 2020

কাল প্রথম দফার ভোট বিহারে
কাল প্রথম দফার ভোট বিহারে

কাল প্রথম দফার ভোট বিহারে

  • scoopypost.com - Oct 27, 2020
  • বিহার বিধানসভার ২৪৩ আসনের প্রথম দফার ভোট শুরু হচ্ছে কাল বুধবার। বিহারে এবার তিন দফায় ভোট হবে। প্রথম দফার ভোট কাল অর্থাৎ ২৮ অক্টোবর। দ্বিতীয় দফার ভোট ৩ নভেম্বর এবং তৃতীয় দফার ভোট ৭ নভেম্বর। ভোট গণনা এবং ফল ঘোষণা ১০ নভেম্বর।প্রথম দফার ভোটে ৭১টি আসনে ভোট গ্রহণ করা হবে। দ্বিতীয় দফায় নেওয়া হবে ৯৪ টি আসনের ভোট। তৃতীয় এবং শেষ দফায় ভোট হবে ৭৮ টি আসনে।   

    বিহার বিধানসভার ভোটের আগে বিভিন্ন সংবাদ মাধ্যমের প্রাক সমীক্ষায় এন ডি এ জোটকেই আবারও ক্ষমতায় ফেরার ইঙ্গিত দেওয়া হয়েছে। প্রাক সমীক্ষার এই ফল সামনে এলেও রাজনীতিক বিশ্লেষকরা বলছেন পরিস্থিতির বদল হচ্ছে। বিশেষ করে এন ডি এ জোটেই এখন নীতীশ কুমারের অবস্থা ভাল নয়। বিজেপি নিজেই নীতীশকে দূর্বল করতে চাইছে বলে বিশ্লেষকদের অভিমত। নিজেদের এই মতের স্বপক্ষে তারা বিজেপির তথা প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির ভোট প্রচারকে তুলে ধরেছেন। মোদি নিজে তাঁর প্রচারে বার বার এন ডি এ জোটকে ক্ষমতায় আনার আহ্বান জানিয়েছেন। বক্তব্যের একেবারে শেষ বেলায় তিনি নীতীশ কুমারের নাম উল্লেখ করেছেন। এর পাশাপাশি বিজেপি বিহার জুড়ে যে হোর্ডিং, ব্যানার করেছে তাতে নরেন্দ্র মোদির হাসি মুখ থাকলেও, তাতে জায়গা পান নি জোটের মুখ্যমন্ত্রী প্রার্থী নীতীশ কুমার। এই সব কারণের পাশাপাশি বিহারে দীর্ঘদিন ক্ষমতায় থাকার সুবাদে নীতীশের বিরুদ্ধে এক স্বভাবিক বিরুদ্ধ মনোভাব তৈরি হয়েছে। সেই কারণেই সমীক্ষায় দেখা যাচ্ছে তাঁর জনপ্রিয়তা অনেক কমেছে। এইসব কারণেই ওয়াকিবহাল মহল মনে করছে বিজেপি খুব সুচতুর ভাবে নীতীশের থেকে নিজেদের দূরে রাখতে চাইছে।

    এর পাশাপাশি রয়েছে এল জে পির চিরাগ ফ্যাক্টর।প্রয়াত রামবিলাশ পুত্র প্রকাশ্যেই  নীতীশের জেল যাত্রার দাবি তুলেছেন। যাতে অত্যন্ত অখুশি নীতীশ। অখুশি হলেও তাঁর এখন বিশেষ কিছু করার নেই বলেই মনে করা হচ্ছে। বিজেপি তাঁকে যেভাবে গ্রাস করে ফেলেছে তার থেকে বেরিয়া আসা খুবই কঠিন বলেই মনে করছেন রাজনীতিকরা।  

    বিহারে দল হিসেব জেডিইউ এখন খুবই দূর্বল। এক সময় নীতীশের পাশে থাকা বড় বড় নেতারা হয় সরে গেছেন নাহলে দল থেকে বিতাড়িত। ফলে দলে এখন নীতীশ ছাড়া আর কোনও নেতা নেই।

    অন্যদিকে এন ডি এ জোটের বিরুদ্ধে মহাজোটের নেতা হিসেবে লালু পুত্র তেজস্বী যাদব দ্রুত উঠে আসছেন। অল্প সময়েই তিনি বিহারবাসীর মন কাড়তে পারছেন বলেই সমীক্ষায় প্রকাশ। মুখ্যমন্ত্রী হিসেবে রাজ্যের মানুষের পছন্দের তালিকায় তিনি যে শুধু দু নম্বরে আছেন তাই নয় , নীতীশ কুমারের ঘাড়ের কাছেই নিঃশ্বাস ফেলছেন তিনি। ফলে প্রাক সমীক্ষায় যে পূর্বাভাসই দেওয়া হোক, এবারের বিহার বিধানসভা নির্বাচনে অপ্রত্যাশিত অনেক কিছু সম্ভাবনা কিন্তু তৈরি হয়ে গেছে। চুড়ান্ত ফল ঘোষনার পর সেই সব সম্বাবনা একে একে সামনে আসবে বলেই রাজনৈতিক বিশ্লেষকদের মত।