সোমবার, নভেম্বর 30, 2020

সাময়িক স্থগিত অক্সফোর্ডের ট্রায়াল
সাময়িক স্থগিত অক্সফোর্ডের ট্রায়াল

সাময়িক স্থগিত অক্সফোর্ডের ট্রায়াল

  • scoopypost.com - Sep 09, 2020
  • সাময়িকভাবে স্থগিত করে দেওয়া হল অক্সফোর্ডের কোভিড ভ্যাকসিনের ট্রায়াল। ইউ কেতে এক ব্যক্তির শরীরে অজানা অসুখ দেখা দেওয়ায় এই ট্রায়াল আপাতত স্থগিত রাখার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। এই ভ্যাকসিনের  যাবতীয় তথ্য এক নিরপেক্ষ সংস্থার হাতে  তুলে দেওয়া হয়েছে যাতে তারা নিরাপত্তার বিষয়টি খতিয়ে দেখতে পারে। যে কোনও ভ্যাকসিন ট্রায়ালের ক্ষেত্রে এই ধরণের ঘটনা নতুন কিছু নয়। এমনটা হতেই পারে। আর তেমন হলে নিরপেক্ষ এবং স্বাধীন সংস্থাকে দিয়ে পুরো বিষয়টি তদন্ত করানো হয়। যাতে ভবিষ্যতে সাধারণ মানুষের ওপর ট্রায়াল দেওয়া হলে তা সম্পুর্ণ নিরাপদ হয়। অক্সফোর্ডের ট্রায়ালের ক্ষেত্রেও তাই করা হয়েছে।

    ইউ কে তে ভ্যাকসিনের ক্ষতিকর প্রভাবের কথা জানার সঙ্গে সঙ্গে ভারতেও এই ভ্যাকসিনের ট্রায়াল স্থিগিত করা হয়েছে। যদিও প্রায় ১০০জনের ওপর তা প্রয়োগ করা  হয়ে গেছে। এই ১০০ জনের শরীরে এখনও কোনও রকম খারাপ কিছু হয় নি। অ্যাস্ট্রাজেন্টা ভারতে এই ট্রায়াল সাময়িক ভাবে বন্ধ রেখেছে।

    তারা জানিয়েছে বড় ধরণের ট্রায়ালের ক্ষেত্রে এমন হতে পারে। আমরা নিরাপত্তার সমস্ত দিক পুনর্মূল্যায়ণ  করার জন্য সাময়িক ভাবে ট্রায়াল স্থগিত রেখেছি। নিরপেক্ষ এবং স্বাধিন এক সংস্থা পুরো বিষয়টি আগে খতিয়ে দেখবে তারপরেই আবার ট্রায়াল শুরুর বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে।

    এদিকে পুণের সিরাম ইন্সস্টিটিউট জানিয়েছে, এই ঘটনা ভারতে ভ্যাকসিন উৎপাদেনের ওপর কোনও প্রভাব ফেলবে না। সিরাম ইন্সস্টিটিউট অব ইন্ডিয়ার সঙ্গে অ্যাস্ট্রাজেন্টা এবং অক্সফোর্ডের ভ্যাকসিন উৎপাদন নিয়ে চুক্তি হয়েছে। মধ্য এবং কম আয়ের দেশগুলির জন্য তারা ভ্যাকসিন তৈরি করবে।সিরাম জানিয়েছে ইউ কে তে যা হয়েছে তা নিয়ে তারা বিশেষ কিছু বলতে পারবে না।তবে আপাতত তা স্থগিত রাখা হয়েছে। সব দিক খতিয়ে দেখে আবার খুব দ্রুত ট্রায়াল শুরু হবে বলেই মনে করা হচ্ছে।

    ইউ কেতে এই ভ্যাকসিনের দ্বিতীয় এবং তৃতীয় পর্যায়ের ট্রায়াল হয়েছে। ৩সেপ্টেম্বর অ্যাস্ট্রাজেন্টা জানিয়েছে আমেরিকায় তাদের সেন্টার প্রায় ৩০ হাজার স্বেচ্ছাসেবক চিহ্নিত করেছে যাদের ওপর তৃতীয় পর্যায়ের ট্রায়াল শুরু হবে।

    ভারতে সিরাম গত মাসের শুরুতে ১০০ জনের ওপর এই ভ্যাকসিনের দ্বিতীয় পর্যায়ের ট্রায়াল চালিয়েছে।সে ট্রায়ালেরব ফলাফল এখনও আসছে।এ সপ্তাহের শেষে সেইসব তথ্য যাচাই করবে ডাটা সেফটি অ্যান্ড মনিটরিং বোর্ড বা (ডি এস এম বি)। তারাই সিদ্ধান্ত নেবে এই ভ্যাকসিন আরও বেশি মানুষের ওপর প্রয়োগ করা হবে কিনা?