সোমবার, নভেম্বর 30, 2020

ট্রায়ালেই প্র্রশ্নের মুখে করোনাভাইরাস টিকা!
ট্রায়ালেই প্র্রশ্নের মুখে করোনাভাইরাস টিকা!

ট্রায়ালেই প্র্রশ্নের মুখে করোনাভাইরাস টিকা!

  • scoopypost.com - Sep 18, 2020
  • প্রতি সাত জনের একজনের শরীরেই দেখা দিয়েছে সমস্যা। রাশিয়ায় স্পুটনিক-ভি ভ্যাকসিনের তৃতীয় পর্যায়ের ট্রায়ালে এই সমস্যা ধরা পড়েছে। রাশিয়ের দ্য মস্কো টাইমস সূত্রে এখবর পাওয়া গেছে।  

    এদিকে রাশিয়ার এই ভ্যাকসিন ভারতে আসার কথা হয়ে গেছে। ডঃ রেড্ডিজ ল্যাবরেটরির সঙ্গে তাদের চুক্তিও হয়ে গেছে। সবকিছু ঠিক থাকলে এ বছরের শেষেই  ভারতে দশ কোটি ডোজ স্পুটনিক ভি এসে যাওয়ার কথা। এর মধ্যে এই সমস্যা দেখা দেওয়ায় ভ্যাকসিন নিয়ে নতুন করে জটিলতা তৈরি হয়েছে। রাশিয়ার স্বাস্থ্য মন্ত্রী মিখাইল মুরোস্কাকে উদ্ধৃত করে মস্কো টাইমস জানিয়েছে, তিনি স্বীকার করেছেন, এই ভ্যাকসিনের তৃতীয় পর্যায়ের ট্রায়ালের জন্য, যাদের শরীরে তা দেওয়া হয় তার মধ্যে প্রতি সাতজনের মধ্যে অন্তত একজনেরই বেশকিছু উপসর্গ দেখা দিয়েছে। যেগুলির মধ্যে পেশীর দূর্বলতা, মাঝে মাঝে জ্বর আসা এসব দেখা গেছে। যদিও কারুর ক্ষেত্রেই এইসব সমস্যা বেশিদিন স্থায়ী হয় নি।

    রাশিয়া ১১ অগস্ট বিশ্বে প্রথম ভ্যাকসিন আনার কথা ঘোষণা করে। সেই সময়ই তারা জানিয়ে দেয় আগামী জানুয়ারি থেকেই তারা এই ভ্যাকসিন ব্যাপক হারে প্রয়োগ করার কথা ভাবছে।

    রাশিয়ার এই টিকা নিয়ে বিশ্বের বিভিন্ন দেশই প্রথম থেকে সংশয় প্রকাশ করেছিলেন। প্রথম পর্যায়ে মাত্র ৭৬জনের শরীরে ভ্যাকসিন প্রয়োগ করে কী করে তা পরবর্তী পর্যায়ে প্রয়োগ করা হল তা নিয়েও কথা উঠেছে। রাশিয়ার টিকার প্রথম ও দ্বিতীয় পর্যায়ের ট্রায়ালের সমস্ত খবর প্রকাশিত হয় বিখ্যাত ল্যানসেট পত্রিকায়।   

    এরপরেই রাশিয়া বিশ্বজুড়ে তাদের ভ্যাকসিনের তৃতীয় পর্যায়ের ট্রায়ালের জন্য প্রস্তুতি শুরু করে দেয়। ভারতে এই কাজের জন্য তারা বেছে নেয় ডঃ রেড্ডিজ ল্যাবরেটরিজকে। এ দেশের নিয়ন্ত্রক সংস্থার ছাড়পত্র পাওয়ার পর তা্রা দশ কোটি ডোজ ভ্যাকসিন ভারতে  পাঠাবে বলেও ঠিক হয়ে আছে। এর মধ্যে এই খবর আসায় তারা এখন রাশিয়া কী করে তা সামাল দেয়, সে দিকেই তাকিয়ে ভারত সহ সারা বিশ্ব।