সোমবার, নভেম্বর 30, 2020

নতুন বছরের শুরুতেই কোভিড ভ্যাকসিন
নতুন বছরের শুরুতেই কোভিড ভ্যাকসিন

নতুন বছরের শুরুতেই কোভিড ভ্যাকসিন

  • scoopypost.com - Sep 08, 2020
  • সুখবর, নতুন বছরের শুরতেই মিলবে কোভিড ভ্যাকসিন। বিশ্ববাসীকে বহু প্রতিক্ষীত এই সুখবর শুনিয়েছে ব্রিটেনের স্বাস্থ্য সচিব ম্যাট হ্যাংকক।তিনি জানিয়েছেন অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ে যে কোভিড ভ্যাকসিনের গবেষণা চলছে তার ফলে আগামী বছরের শুরুতেই তাঁরা ভ্যাকসিন পেয়ে যাবেন বলে আশাবাদী। সোমবার লন্ডন রেডিওতে তাঁর এই বক্তব্য সম্প্রচারিত হয়েছে।  

    সিপলা কোম্পানির প্রধান ইউসুফ হামিদ জানিয়েছেন এই ভ্যাকসিন আর ভারতের সিরাম ইন্সস্টিটিউট যে ভ্যাকসিন তৈরি করছে তা একই। ব্রিটিশ-সুইডিশ মাল্টিন্যাশানাল অ্যান্ড বায়োফার্মাসিউটিক্যাল সংস্থা অ্যাস্ট্রাজেনটার সঙ্গে, সিরাম এই ভ্যাকসিন প্রস্তুত করছে।

    অ্যাস্ট্রাজেনটা যে ভ্যাকসিন তৈরি করছে তার কোড নাম ‘চ্যাডক্সওয়ানএন কোভ-১৯’।ই উ কে প্রশাসন ইতিমধ্যে এই ভ্যাকসিনকে ছাড়পত্র দিয়েছে। হামিদ জানিয়েছেন আর কোনও রকম পরীক্ষা না করেই ভারতেও এই ভ্যাকসিন প্রয়োগ করা হবে।কারণ ভারতে ইতিমধ্যেই এই পরীক্ষা করা হয়ে গেছে।হামিদ জানিয়েছেন সিপলা রাশিয়ার ভ্যাকসিন নিয়ে ক্লিনিক্যাল পরীক্ষার কাজ করছে। অন্য অনেক দেশের চেয়ে ভারতের কোভিড পরিস্থিতি অনেক গুরুতর। সোমবার যে তথ্য সামনে এসছে তাতে দেখা যাচ্ছে আমেরিকার পর ভারতই বিশ্বের দ্বিতীয় সর্বোচ্চ কোভিড সংক্রামিত দেশ ।

    ম্যাট হ্যাংকক লন্ডন রেডিওকে দেওয়া তাঁর সাক্ষাৎকারে জানিয়েছেন তারা খুব তাড়াতাড়ি এই ভ্যাকসিনের ৩০ মিলিয়ন ডোজ হাতে পাবে। অস্ট্রেলিয়ার চেয়ে আগেই পাবে।

    তবে ঠিক কবে এই ভ্যাকসিন হাতে পাওয়া যাবে তার জবাবে তিনি বলেন, সবকিছু যদি ঠিক থাকে এবং খুব তাড়াতাড়ি হয়ে যায় তাহলে এ বছরের শেষেই পাওয়া যেতে পারে। সবদিক ঠিক রেখে বলতে গেলে বলা ভাল আগামী বছরের শুরুর কয়েকটা মাস সারা বিশ্বের কাছে খুব গুরুত্বপূর্ণ।

    আগামি শীতের মরসুমে ইউ কে তে এই কোভিড ভয়ঙ্কর রকম বেড়ে যাবে বলেই আশঙ্কা করছে ব্রিটিশ প্রশাসন। তাদের হাতে এই তথ্যও এসেছে গত কয়েক দিনে সংক্রামিতের সংখ্যা বেড়েছে। তার সঙ্গেই দেখা যাচ্ছে এই সংক্রমণ বেশি হচ্ছে কম বয়সীদের। বিশেষ করে ১৭ থেকে একুশ বছরের মধ্যে।

    ভারতেও এই প্রবণতা আসবে কিনা তাই নিয়েই চিন্তায় রয়েছে প্রশাসন।