মঙ্গলবার, জানুয়ারী 26, 2021

সঙ্গমের মুহূর্তে ব্যথায় কুঁকড়ে যান মহিলারা, কেন?
সঙ্গমের মুহূর্তে ব্যথায় কুঁকড়ে যান মহিলারা, কেন?

সঙ্গমের মুহূর্তে ব্যথায় কুঁকড়ে যান মহিলারা, কেন?

  • scoopypost.com - Nov 10, 2020
  • সুস্থ যৌন জীবন শরীর ও মনের জন্য অত্যন্ত প্রয়োজনীয় আধুনিক গবেষণায় তা প্রমাণিত। কিন্তু সঙ্গমের সময় বহু মহিলাই ব্যাথায় কুঁকড়ে যান। কেন জানেন কী!এর পিছনে যেমন শারীরিক কারণ থাকতে পারে, তেমনই থাকতে পারে মানসিক সমস্যাও।কিন্তু সমস্যার সমাধান না করে যন্ত্রণায় কুঁকড়ে যাওয়া সঙ্গিনীর সঙ্গে নিয়মিত সঙ্গম করলে তাঁর স্থায়ী মানসিক ভীতি তৈরি হতে পারে।


    জেনে নিন কী কারণে মহিলাদের সঙ্গম যন্ত্রণাদায়ক হতে পারে...


    • প্রথম সঙ্গম করলে যন্ত্রণা হতেই পারে। সেটাই স্বাভাবিক। কারণ, মহিলাদের ভ্যাজাইনা স্থিতিস্থাপক। অনেকেরই হাইমেন অক্ষত থাকে। ফলে প্রথমবার ইন্টারকোর্সের সময় ব্যথা লাগে। তবে বেশ কয়েকবার সঙ্গমের পর সমস্যা হওয়ার কথা নয়। হলে দেখতে হবে সমস্যা কোথায় হচ্ছে?

    • সঙ্গমের সময় মহিলাদের যোনি থেকে পিচ্ছিল তরল নিঃসৃত হয়। যা সঙ্গমকে আরামদায়র করে তোলে। কিন্তু কোনও সময় মানসিকভাবে যৌন উত্তেজনা তৈরি না হলে লুব্রিকেশন বা তরল নিঃসরনে সমস্যা হয়। যার জেরে সঙ্গমের সময় ব্যাথা, জ্বালা হতে পারে। এজন্য সঙ্গমের চূড়ান্ত পর্যায়ে যাওয়ার আগে সঙ্গিনীকে আদর করে যৌন উত্তেজনা বাড়িয়ে নেওয়া প্রয়োজন।তাছাড়া সঙ্গমের সময় অন্য কোনও বিষয়ের ভাবনা মাথায় থাকলেও লুব্রিকেশনের অভাব হতে পারে। তাই সেক্স বিষয়টা উপভোগ করতে শরীর-মনের একাগ্রতা দরকার।

    • যোনিপথে শুষ্কতার সমস্যা থাকে কোনও মহিলার। অর্থাত্ সঙ্গমের সময় সেই সমস্ত মহিলাদের পিচ্ছিল তরল ঠিকমতো নিঃসৃত হয় না।‘ভ্যাজাইনাল ড্রাইনেস’ একটি অসুখ।এক্ষেত্রে চিকিত্সকের পরামর্শ নেওয়া উচিত। ডাক্তারের পরামর্শে কৃত্রিম লুব্রিকেশন ব্যবহার করা যায়।


    • সেক্স পজিশনও যন্ত্রণাদায়ক সঙ্গমের কারণ হতে পারে। ঠিকমতো সঙ্গী পেনিট্রেশন করতে না পারলে যোনিতে ব্যথা লাগতে পারে। এক একজনের ক্ষেত্রে সেক্স পজিশন এক একরকম হতে পারে। তাই কোন পজিশনে কমফর্টেবল হচ্ছেন দু’জনেই তা বুঝে নিতে হবে।

    • যোনিতে অনেক সময় ছত্রাক ঘটিত সংক্রমণ হয়। তা থেকে সঙ্গম যন্ত্রণাদায়ক হতে পারে। এক্ষেত্রে যোনিপথে জ্বালা, চুলকানির মতো সমস্যা দেখা দেয়। নিয়মিত ভ্যাজাইনা সঠিকভাবে পরিষ্কার করা জরুরি।ক্ষারযুক্ত সাবানের বদলে পিএইচ-এর মাত্রা বজায় রাখতে পারে ইন্টিমেট এরিয়ার স্বাস্থ্যের জন্য তৈরি এমন জিনিস ব্যবহার করা যেতে পারে। সংক্রমণ টের পেলে ডাক্তারের পরামর্শ নেওয়া দরকার।

    • অনেক মহিলা সঙ্গমের সময় এতটাই যন্ত্রণা পান যে ইন্টারকোর্স মাঝপথে ছেড়ে দিতে হয়। এই বিষয়টা অনেক সময় মানসিকও হয়। সেক্স নিয়ে ভয় কাজ করে অনেকের মনে। তাছাড়া, কোনও মহিলার যৌন ইচ্ছাও কম হয়। সেইসমস্ত কারণে এই সমস্যা হয়। এক্ষেত্রে সেক্সোলজিস্ট দেখানোর পাশাপাশই কাউন্সেলিংও জরুরি হয়।

    • হরমোনের ভারসাম্যের অভাবও যৌন চাহিদা ও সঙ্গমে প্রভাব ফেলে।হরমোনের ভারসাম্য নষ্ট হলে যোনিপথ শুষ্ক হতে পারে, যৌন ইচ্ছার অভাব দেখা দিতে পারে। যার ফল, লুব্রিকেশনের অভাব ও জ্বালা, যন্ত্রণা।মানসিক অবসাদ, দুশ্চিন্তা, ক্লান্তিও এক্ষেত্রে ভিলেন হতে পারে।

    • যে সমস্ত মহিলাদের ওভারিতে সিস্ট আছে বা এন্ড্রোমেট্রিওসিসে ভুগছেন তাঁদের ক্ষেত্রেও কখনও কখনও সঙ্গম যন্ত্রণাদায়ক, কষ্টকর হয়ে ওঠে।

    নিয়মিত সঙ্গম যন্ত্রণাদায়ক হয়ে উঠলে অবশ্যই চিকিত্সকের পরামর্শ নেওয়া দরকার। কারণ, সুস্থ যৌন জীবন শুধু সন্তান উত্পাদন নয় নিজেদের ভালো থাকার জন্যও খুব জরুরি।