সোমবার, মার্চ 08, 2021

শীতের ফান্ডা, শাড়ি-শালের অসাধারণ যুগলবন্দি
শীতের ফান্ডা, শাড়ি-শালের অসাধারণ যুগলবন্দি

শীতের ফান্ডা, শাড়ি-শালের অসাধারণ যুগলবন্দি

  • scoopypost.com - Dec 02, 2020
  • শীত মানেই ‘ফেস্টিভ মুড’। শীতের নরম রোদ গায়ে মেখে হুল্লোড়। রাত পার্টি। বিয়েবাড়ি।

    শীত যখন অল্প তখন তা নিয়ে ভাবনা নেই। কিন্তু শীত যদি জম্পেশ হয়, আর ঠিক সেই সময়ই বিয়েবাড়ি পরে, তাও খোলা আকাশের নীচে তখন একটু ভাবনা হয় বৈকি! কারণ, বিয়েবাড়ির সাজ যাতে মাটি না-হয় তাই কাঁপতে কাঁপতে পিঠ খোলা ব্লাউজ আর পাতলা শাড়ি পরে  আনন্দ-ফূর্তি করতে হয়।ফল, ঠান্ডা লাগা-গলা ব্যাথা।

    কলকাতায় শীত কমই পড়ে। তবে যদি উত্তর ভারতের দিকে কোথাও আত্মীয়-স্বজনের বিয়েবাড়ি থাকে তাহলে শীতে কাঁপতে কাঁপতেই ছবি-সেলফি তুলতে থাকেন নিমন্ত্রিতরা।

    কিন্তু শীতের ফ্যাশন-ফান্ডা যদি একটু বদলে ফেলেন, তাহলে গরম কাপড়েও পার্টির মধ্যমণি হতে পারেন আপনি।বঙ্গতনয়াদের পার্টি, অনুষ্ঠানের সঙ্গে ওতপ্রোতভাবে জড়িয়ে থাকে শাড়ি। সেই শাড়ি আর রকমারি শালের সঙ্গতে আপনি কীভাবে ফ্যাশন আইকন হয়ে উঠতে পারেন রইল তারই টিপস।

    বাড়িতে রকমারি শাল পড়ে রয়েছে। কিম্বা কেউ কখনও সিমলা, হরিদ্বার, কাশ্মীর বেড়াতে গিয়ে শাল, চাদর, জ্যাকেট এনে দিয়েছে। যেগুলো গায়ে দেওয়াই হয়ে ওঠেনি। সেগুলোকেই এবার কাজে লাগান। সুন্দর শাল নিয়ে চলে যান আপনার টেলারের কাছে। বানিয়ে দিতে বলুন গলাবন্ধ-ফুলহাতা ব্লাউজ। কোট স্টাইল ব্লাউজ বানাতে পারেন। হাই-নেক ব্লাউজও এখন ফ্যাশনে ইন। আর যেটা পারেন শাল দিয়ে কুর্তি স্টাইল ব্লাউজ বানাতে। তার সঙ্গে মানানসই শাড়ি সামনে আঁচল বা সরু প্লিট করে পরুন। নজর থাকবে আপনারই দিকে।

    কাশ্মীরি কোট অনেক সময়ই বাড়িতে পড়ে থাকে। অসাধারণ পশমিনা কাজের লং কোট শাড়ির সঙ্গে কনট্রাস্ট মিলিয়ে পরুন। আর শাড়ির আঁচলটা গলায় পেঁচিয়ে নিন।আপনার স্টাইল তৈরি করবেন আপনি।

    হাইনেক শোয়েটার ব্লাউজ করে নিন। তারপর সামনে-পিছনে বা শাড়ি ছেড়ে যেভাবে ইচ্ছে আঁচল করে পরুন।

    এবার আসি শাল ও শাড়ির যুগলবন্দিতে। যদি চান শালও থাকবে অথচ তা কেউ দেখতে পাবে না, সেটাও সম্ভব। শুধু সে জন্য শাড়িটা একটু মোটা আর রংচংয়ে বাছুন। সাধারণভাবে যেমন শাড়ি পরেন তেমনই কোমরে কুঁচি করে নিন। এবার শালটা ব্যবহার করুন ঠিক অসমের মেখলার মতো। শালের একটা প্রান্ত কোমরে গুঁজে যেভাবে শাড়ির আঁচল কোমর দিয়ে ঘুরিয়ে বুকে ফেলে তেমনই ফেুলন। শালের ওপর শাড়িটা যেমন পরেন তেমন পরুন। সেফটিপিন দিয়ে শাড়ি ও শাল আটকে দিন। বাইরে থেকে কেউ বুঝবেই না শাড়ির নীচে শাল আছে।

    এই শালই আবার একেবারে নতুন স্টাইলে পরতে পারেন। শাড়ি কোমরে জড়িয়ে কুঁচি করে নিন। এবার ফুলহাটা ব্লাউজের ওপর শালটা ঘাড়ের পিছন দিয়ে ঘুরিয়ে সামনে ফেলুন।ঘাড়ের পিছন দিয়ে যেভাবে ওড়না নেয়, বুকের দুদিকে লম্বায় ঝোলে ওড়না সেভাবে।তারপর শাড়ির আঁচল সামনে দিয়ে প্লিট করে নিন।

    শাড়ি ও শাল দিয়ে কতরকমের ফ্যাশন স্টেটমেন্ট আপনি করতে পারেন তারই আইডিয়া রইল একটি ইউটিউব ভিডিও