রবিবার, নভেম্বর 29, 2020

পুজোয় চাই বাড়তি জেল্লা! বাড়িতেই সিট মাস্ক
পুজোয়  চাই বাড়তি জেল্লা! বাড়িতেই সিট মাস্ক

পুজোয় চাই বাড়তি জেল্লা! বাড়িতেই সিট মাস্ক

  • scoopypost.com - Oct 18, 2020
  • ইদানীং রূপচর্চায় সিট মাস্ক খুব জনপ্রিয়। কারণ হাতে সময় কম। ব্যস্ততা। তার ফাঁকে মিনিট ১৫ বের করতেই পারলেই একটু বিশ্রামের সঙ্গে মেলে তরতাজা ত্বক। বাজারচলতি নানা ধরনের সিট মাস্ক পাওয়া যায়। তবে তাতে ক্ষতিকর কেমিক্যালেও থাকে।

    তাই যদি পুজোর আগে ও পুজোর সময় কম খরচে রূপচর্চা করতে চান, তাহলে বাড়িতে থাকা জিনিস দিয়েই হবে কাজ। কাগজের সিটের মধ্যে ত্বকের উপযোগী তরল ঢেলে দিতে হবে। সিট সেটা শুসে নেওয়ার পর মুখে ১৫-২০ মিনিট রাখতে হবে। তারপর সিট সরিয়ে হালতা হাতে ম্যাসাজ করলেই ঝকঝকে হবে ত্বক। কীভাবে সিট মাস্ক তৈরি করবেন স্কুপিপোস্টের তরফে রইল টিপস।

    প্রথমেই দেখুন আপনার ত্বক কেমন, শুষ্ক, ব্রণযুক্ত না তৈলাক্ত। সংবেদনশীল ত্বক কি না!এক এক রকম ত্বকের জন্য থাকবে এক এক ধরনের সমাধান।

    কমপ্রেসড ট্যাবলেট সিট মাস্ক


    অনলাইনে পাওয়া যায়। এগুলোতে চোখ-মুখ-ঠোঁটের জায়গা কাটাই থাকে। দেখতে সাদা ট্যাবলেটের মতো। মুখের জন্য মাস্ক বানিয়ে তাতে ট্যাবলেটটা ফেললেই, মাস্ক তরল শোষণ করে ফুলে উঠবে। সেটাই মুখ পরিষ্কার করে ১৫ মিনিট লাগিয়ে রিল্যাক্স করতে হবে। মিনিট ১৫-২০ পর সিট সরিয়ে হালকা হাতে ম্যাসাজ করে নিন।

    ট্যাবলেট মাস্ক না পেলে বাজারচলতি কোনও ভালো ওয়াইপস কাঁচি দিয়ে কেটে মুখের জন্য মাস্ক তৈরি করে নিতে পারেন।

    শুষ্ক বা নর্মাল ত্বক

    অ্যালোভেরা জেলের সঙ্গে ভিটামিন ই ক্যাপসুল মিশিয়ে নিন। দিয়ে দিন সামান্য ঠান্ডা গোলাপ জল। অ্যালোভেরা জেল গাছ থেকে নিয়ে ব্যবহার করতে পারেন। নয়তো বাজার চলতি ভালো অ্যালোভেরা জেল কিনে রাখতে পারেন।যদি ট্যাবলেট সিট ব্যবহার করেন তাহলে অ্যালোভেরার দ্রবণটা বানিয়ে তাতে ফেলে দিন সিট। তরল শোষণ করে দু’ মিনিটেই সেটা রেডি হয়ে যাবে ব্যবহারের জন্য

    অ্যাকনে প্রবণ ত্বক

    অ্যান্টি এজিং ও অ্যাকনে প্রবণ ত্বকের জন্য গ্রিন টি খুব  উপকারি। গ্রিন টি বানিয়ে ঠান্ডা করে নিন। দিয়ে দিন লেবুর রস। তার মধ্যে সিট দিয়ে সিট মাস্ক বানান। ত্বকের সংক্রমণ দূর করতে, ব্রণ কমাতে গ্রিন টি খুব উপকারি। চা-এর অ্যান্টি অক্সিডেন্ট প্রপার্টি ত্বকের বার্ধক্য রোধে সহায়ক।

    সংবেদনশীল-সহ সমস্ত ত্বকের জন্য


    গ্লিসারিন, তরমুজের রস ও মধু দিয়ে সিরাম বা দ্রবণ বানান। তরমুজের রস ত্বকে হাইড্রেট করে। গ্লিসারিন ত্বকে তেলের ভারসাম্য ঠিক রাখে। মধু ত্বকে জেল্লা বাড়ানোর পাশাপাশি প্রাকৃতিক ব্লিচের কাজ করে।

    রিফ্রেশিং মাস্ক


    সারাদিনের ক্লান্তি বা রোদে বের হওয়ার পর রিফ্রেশ হতে শসার রস আর অ্যালোভেরা জেলের সিট মাস্ক ব্যবহার করুন। শসার রস ও অ্যালোভেরা জেল মিশিয়ে ফ্রিজে এয়ার টাইট কৌটোয় ভরে রাখুন। নিয়মিত ব্যবহারে ত্বক তরতাজা হয়ে উঠবে।

    শীতের মাস্ক


    পুজো গেলেই শীত। তারপরেই ত্বকে টান ধরবে। যাঁদের ত্বক শীতে ভীষণ শুকিয়ে যায় তাঁরা ভিটামিন-ই, জোজোবা অয়েল ও ল্যাভেন্ডার অয়েল মিশিয়ে মাস্ক ব্যবহার করুন।