বৃহস্পতিবার, অক্টোবর 22, 2020

হাত ঘোরালেই মোয়া...
হাত ঘোরালেই মোয়া...

হাত ঘোরালেই মোয়া...

  • scoopypost.com - Jan 24, 2020
  • শীতের দিন মানেই, নলেন গুড়, জয়নগরের মোয়া আহা!!

    মিষ্টিপ্রেমীদের মনটা আনচান করে ওঠে মোয়ার জন্য। হওয়াটাই স্বাভাবিক।বছরভর তো এমন স্বাদু মোয়া মেলে না। শীত পড়লেই মিলবে খাঁটি নলেন গুড়।তার সঙ্গে যুৎসই পাক হলে, গুড়-খই ঠিকভাবে মিশলে, ক্ষীরের স্বাদ জুড়লে তবেই না হবে তেমন মোয়া। মিষ্টির দোকানে মোয়া মিলতে পারে, কিন্তু তার স্বাদ কী আর জয়নগরের ফেমাস মোয়ার মতো হয়?

    তা যদি জয়নগরে গিয়ে মোয়া খাওযার সুযোগ না-হয়, তাহলে একবার বাড়িতেই ট্রাই করতে পারেন সেই মোয়া। হ্যাঁ খাটনি একটু আছে বৈকি! তবে কথায় আছে, কষ্ট করলে কেষ্ট মেলে। জেনে নিন জয়নগরের মোয়ার রেসিপি...

    লাগবে-কনকচূড় ধানের খই, খাঁটি নলেন গুড়, গাওয়া ঘি, এলাচের গুঁড়ো, চিনি, ক্ষোয়া ক্ষীর, কিসমিস

    কীভাবে করবেন?

    প্রথমে নলেন গুড় ও জল ভাল করে ফুটিয়ে নিন।আলাদা করে রাখুন।এবার কড়াইতে জল ও চিনি ভাল করে ফুটিয়ে নিন। চিনি গলে রস তৈরি হলে তার মধ্যে দিয়ে দিন নলেন গুড়। ফোটাতে থাকুন। এক্ষেত্রে খেয়াল রাখতে হবে মিশ্রনটা খুব ঘন বা পাতলা হবে না। খুন্তিতে মিশ্রনটা নিয়ে একটু তুলে ধরুন।

    যখন দেখবেন সেটা সরু হয়ে পড়ছে তখন বুঝবেন পাকটা ঠিক হয়েছে। এবার গ্যাস বন্ধ করে একটু ঠাণ্ডা হতে দিন গুড়ের মিশ্রনটা। তারপর আস্তে আস্তে খইগুলো কড়াইতে ঢেলে দিন। কনকচূড় ধানের খই হলেই সবচেয়ে ভাল হয়। কারণ, এই খইয়ে একটা সুন্দর গন্ধ বের হয়। যদি তা না-পাওয়া যায় যে কোনও ভালমানের খই ব্যবহার করতে পারেন।খইয়ে গুড়ের মিশ্রনটা ভাল করে মাখিয়ে নিন। দেখবেন খইগুলো যেন ঝরঝরে থাকে।

    তারপর ওপর থেকে গুড় ও জলের মিশ্রন ছড়িয়ে দিয়ে সারা রাত ঢাকা দিয়ে রেখে দিন। পরদিন দেখবেন খইয়ে হালকা রং ধরেছে। এরপর ওই খইয়ের মধ্যে ক্ষোয়া ক্ষীর গুঁড়ো করে মিশিয়ে দিন। খেয়াল রাখবেন ক্ষোয়া ক্ষীরে যেন কোন ড্যালা না থাকে। ভাল করে সেটা খইয়ের সঙ্গে মিশিয়ে নিন। তারপর দিয়ে দিন জল ও গুড়ের মিশ্রন।হাত দিয়ে খই মাখতে থাকুন। এতে অনেকটাই নরম হয়ে যাবে খই। ক্ষোয়া ক্ষীর থাকায় আঠালোও হবে একটু। ওপর দিয়ে ছড়িয়ে দিন সামান্য এলাচের গুঁড়ো। বেশি দেবেন না, এতে নলেন গুড়ের গন্ধ নষ্ট হয়ে যাবে। আর দিয়ে দিন ঘি। এবার ভাল করে মেখে মোয়া বানিয়ে নিন।

    প্লেটে সাজিয়ে ওপর থেকে ক্ষোয়া ক্ষীর গুঁড়ো করে ছড়িয়ে দিন। আর দিয়ে দিন একটা করে কিসমিস।রেডি শীতের দিনে টেস্টি মোয়া।