শুক্রবার, নভেম্বর 27, 2020

প্রেগন্যান্সিতে কোন খাবার আপনার জন্য ভালো জেনে নিন
প্রেগন্যান্সিতে কোন খাবার আপনার জন্য ভালো জেনে নিন

প্রেগন্যান্সিতে কোন খাবার আপনার জন্য ভালো জেনে নিন

  • scoopypost.com - Nov 19, 2020
  • দাম্পত্য জীবনে নতুন অতিথি আসার খবর যতটা সুখের, ততটাই ভয়েরও হয়। বিশেষত প্রথমবার যিনি মা হচ্ছেন তাঁর কাছে।আবার সন্তান জন্মানোর পরেও কিছু সমস্যা দেখা দেয়। সন্তান হওয়ার পরেও ঠিকমতো খাওয়া জরুরি।

    আগে যৌথ পরিবারে বয়স্ক মহিলারাই এই পরিস্থিতিতে কী করণীয় বলে দিতেন। কিন্তু এখন নিউক্লিয়ার পরিবার। কাজের সূত্রে পরিবার  থেকে স্বামী-স্ত্রী অনেক সময়ই দূরে থাকেন। হরমোনাল তারতম্যে এই সময় শরীরে যেমন বদল হয়, তেমন মনেও নানা ধরনের ভয় কাজ করে।

    কিন্তু একটু সাবধান হলেই প্রেগন্যান্সি পিরিয়ড খুব সুন্দরভাবে সামলানো যায়।এই পরিস্থিতি কী খাবেন, কোনটা না তা নিয়ে নানা জনের নানা মত।

    পুষ্টিবিদদের মতে এই সময় যা করা ও খাওয়া উচিত...

    যেহেতু প্রেগন্যান্সির শুরুর দিকে সকালবেলাতেই গা বমি ভাব থাকে বেশিরভাগেরই এই সময়টা খাওয়া নিয়ে সমস্যা হয়। গা-বমি ভাব কাটাতে আদা বা পাতি লেবু চুষে নিন। দেখবেন খুব তাড়াতাড়ি সুস্থ লাগবে

    যা মন চাইবে তাই খাবেন। তবে প্রসেসড ফুড এড়িয়ে যান। খুব তেল-ঝাল আর বাইরের খাবার না খাওয়াই ভালো।

    এই সময় গ্যাস-অম্বলের সমস্যা খুব বাড়ে। অ্যান্টাসিডের বদলে উষ্ণ গরম জলের সঙ্গে এক চামচ জিরে বা লেবু খান

    টক, ঝাল খাওয়ার ইচ্ছে বাড়ে।বাড়িতেই আমলকি, তেঁতুল, আদার চাটনি বানিয়ে নিন

    এই সময় ইনসুলিনের ভারসাম্য নষ্ট হয়। সেদিকটা খেয়াল রাখতে হবে

    সন্তান জন্মানোর পর বা পোস্ট প্রেগন্যান্সি স্টেজ

    সন্তান জন্মের পর ধকল আরও বাড়ে। একরত্তির দেখভাল, তাকে খাওয়ানো, শোওয়ানো। সেইসঙ্গে নিজের পুষ্টি। কারণ, মায়ের বুকের দুধে সন্তানের বৃদ্ধি, সুস্থতা নির্ভর করে।

    এখন যেহেতু সিজার করেই বাচ্চা প্রসবের চল বেশি তাই এই সময় কনস্টিপেশন বড় সমস্যা হয়ে দাঁড়ায়। পেট পরিষ্কার না-হলে সমস্যা বাড়ে। কোষ্ঠকাঠিন্যের ফলে সেলাইয়ে টান পড়তে পারে।তাই ফাইবার সমৃদ্ধ ফল ও সবজি বেশি খেতে হবে।আপেল, কলা, পেয়ারা, বেল ইত্যাদি খান। সমস্ত সবুজ সবজি খান শরীর ভালো রাখতে।

    মেথি সারারাত জলে ভিজিয়ে সেই জল খান। শরীর ভালো থাকবে

    বাচ্চার জন্য রাত জাগতে গিয়ে ক্ষিদে পেতেই পারে। নারকেলের টুকরো, খেঁজুর খান ক্ষিদে পেলে

    পনজিরি, গঁদের লাড্ডু খেতে পারেন এই সময় চুল ওঠা বন্ধ করতে, আমলকিও খুব উপকারি

    ডালের মধ্যে কয়েক চামচ ঘি দিয়ে খান, ত্বক ও শরীর ভালো রাখতে

    নিরামিশাষি না হলে অবশ্যই মাছ, মাংস, ডিম খাবেন

    এর পরেও যেটা প্রযোজন নিজের জন্য সময় বের করা। শরীরের বিশ্রাম। আর মন ভালো রাখা।