বুধবার, নভেম্বর 25, 2020

ষষ্ঠী স্পেশাল ঠাকুরবাড়ির আলুরদম
ষষ্ঠী স্পেশাল ঠাকুরবাড়ির আলুরদম

ষষ্ঠী স্পেশাল ঠাকুরবাড়ির আলুরদম

  • scoopypost.com - Oct 22, 2020
  • দুর্গাপুজো মানেই কবজি ডুবিয়ে খাওয়া। সপ্তমী, নবমী, দশমী আমিষ হলেও, ষষ্ঠী-অষ্টমী বহু বাড়িতেই নিরামিষের চল।ময়দা খাওয়ার নিয়ম। মানেই লুচি বা পরোটা। সেদিন ভাতে ইতি।

    ষষ্ঠীতে যদি গরম ফুলকো লুচি হয়, তবে আলুরদম কিন্তু মাস্ট। আর এবারের পুজো জমাটি করতে, বাড়িতে বসেই খাওয়া-দাওয়ার জন্য রইল ঠাকুরবাড়ির আলুরদমের রেসিপি। রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের পরিবার এক সময় সমাজের বিভিন্ন স্তরের মানুষের কাছেই ছিল সম্মানীয়। শিক্ষা, রুচি, আভিজাত্যর মিশেলে দ্বারকানাথ ঠাকুরের সময় থেকেই জোড়াসাঁকোর এই বাড়ির কদর। তারপর দেবেন্দ্রনাথ থেকে জ্যোতিরিন্দ্রনাথ, রবীন্দ্রনাথ-সহ অনেকেই পরিবারের সম্মান এগিয়ে নিয়ে গিয়েছে। বিশাল ঠাকুরবাড়িতে প্রতিদিন পাত পড়ত অসংখ্য মানুষের। রুচিশীল লোকজনের খাওয়াতেও ছিল বিশেষত্ব।পরিবারের নাতনি পূর্ণিমা ঠাকুরের রান্নার বইতে মেলে এই পরিবারের রেসিপির হদিশ। পূর্ণিমা ঠাকুরের মা ছিলেন নলিনী দেবী। তিনি ঠাকুর বাড়ির মেয়ে। দেশ-বিদেশের রান্নার প্রণালী লিখে রাখা তাঁর সখ ছিল। সেই খাতা তিনি পূর্ণিমা ঠাকুরকে দিয়ে গিয়েছিলেন।

    তেমনই একটি সহজ ও নিরামিষ আলুরদমের রেসিপি রইল স্কুপিপোস্টের তরফে।

    লাগবে- আলু, গোটা ধনে ও জিরে, কাঁচা লঙ্কা, নুন, হলুদ, চিনি, আদা, হিং, তেতুল জল

    করবেন কী করে- একটি কড়াইতে এক চামচ ধনে ও জিরে নেড়ে চেড়ে হামালদিস্তায় পিষে নিন বা মিক্সিতে গুঁড়িয়ে নিন। বেশ কয়েকটা কাঁচালঙ্কাও হাল্কা পিষে বা বেটে নিন।

    আলু ডুমো করে কেটে হলুদ ও নুন মাখিয়ে ভেজে তুলে নিন।

    গরম তেলে দিন আদা বাটা, লঙ্কা বাটা। ভালো করে গরম তেলে খুন্তি দিয়ে নাড়িয়ে নিন। তারপর ধনে ও জিরে গুঁড়ো দিন। মেশান কাঁচালঙ্কা। ভেজে রাখা আলু দিয়ে ভালো করে কষিয়ে নিন।দিয়ে দিন হিং, স্বাদমতো নুন ও চিনি।তারপর গরম জল দিয়ে নাড়াচাড়া করে ঢাকা দিয়ে দিন।আলু ফুটে সেদ্ধ হয়ে গেল মিশিয়ে দিন গরম মশলা। আর কিছুক্ষণ ফোটার পর নামামোর আগে মিশিয়ে দিন স্বাদমতো তেতুল জল।

    আলুরদম প্রস্তুত। গরম আর ফুলকো লুচি দিয়ে সোজা পেটে চালান করুন।