বুধবার, নভেম্বর 25, 2020

জমিয়ে রাঁধুন মাংসের ঘুগনি
জমিয়ে রাঁধুন মাংসের ঘুগনি

জমিয়ে রাঁধুন মাংসের ঘুগনি

  • scoopypost.com - Oct 02, 2020
  • বাংলা আর বাঙালির সঙ্গে ঘুগনির একটা ওতপ্রোত যোগ। তাও যে-সে ঘুগনি। পাঁঠার মাংসের কিমা দিয়ে জমিয়ে রাঁধা ঘুগনি। আগে কলকাতার ছোট-খাটো নানা জায়গাতেই ভাঁড়ে মিলত মাংসের ঘুগনি।এখনও বিভিন্ন জেলাতে রয়ে গিয়েছে সেই ঐতিহ্য। বিকেল হলেই মাংসের ঘুগনির জন্য লম্বা লাইন।

    তবে কলকাতা ও বাংলার সেই পুরনো ঐতিহ্য এখন একটু ফিকে হতে বসেছে।আগে দশমীর দিনেও ঘরে ঘরে চল ছিল ঘুগনি ও ছাপা মিষ্টির। এখন সেই সবের জায়গা নিয়েছে পিত্জা, বার্গার, চিকেন ৬৫। বাংলায় এখন অবাধ প্রবেশ তিব্বতি মোমোর। সঙ্গে চাউমিনের সঙ্গে সমান দাপট ইটালিয়ান পাস্তারও।

    তবে সেই যে ওপরে পেঁয়াজ, লঙ্কা কুঁচি, লেবুর রস ছড়িয়ে আয়েশ করে মাংসের ঘুগনি খাওয়া, তার বিকল্প নেই।হারানো জিনিস নতুন করে যাতে রাঁধতে পারেন তাই রইল মাংসের ঘুগনির রেসিপি।

    লাগবে-আলু, মটর, পেঁয়াজ, আদা, রসুন বাটা, টমটো, লঙ্কা গুঁড়ো, ধনে গুঁড়ো, জিরে গুঁড়ো, গরম মশলা, পাঁঠার মাংসের টুকরো বা কিমা

    কীভাবে রাঁধবেন- আলু ছোট ছোট করে কেটে নুন ও হলুদ দিয়ে ভেজে তুলে নিন। প্রেসারে ঘুগনির মটর নুন ও হলুদ দিয়ে সেদ্ধ করে নিন। খেয়াল রাখবেন সেদ্ধ করার যেন মটর পুরো গলে না যায়।

    এবার কড়াইতে গোটা গরম মশলা দিয়ে মিহি করে কাটা পেঁয়াজ বাদামি করে ভাজুন। তারপর দিন মাংসের টুকরো অথবা কিমা। মাটন না চাইলে মুরগির মাংসও ব্যবহার করতে পারেন। পেঁয়াজের সঙ্গেই মাংসের কুঁচি ভেজে নিন। তারপর আদা ও রসুন বাটা, লঙ্কা ও ধনে গুঁড়ো দিয়ে কষান। দিয়ে দিন টমেটো। স্বাদমতো নুন ও সামান্য চিনি দিয়ে মাংস কষাতে থাকুন।আঁচ কমিয়ে ঢাকা দিয়ে দিন ওপর থেকে যতক্ষণ না তেল ছাড়ছে। মাংস সেদ্ধ হয়ে এলে জল-সহ সেদ্ধ মটর দিয়ে কষাতে থাকুন।মটর জল টানে। তাই জল একটু বেশি রাখাই ভালো। রান্নায় সময় দরকারে অল্প অল্প করে গরম জল ব্যবহার করবেন।রান্না হয়ে গেলে ওপর থেকে গরম মশলা, ভাজা জিরে গুঁড়ো ছড়িয়ে দিন।

    পরিবেশনের আগে পেঁয়াজ ও লঙ্কা কুঁচি, লেবুর রস বা তেঁতুলের জল ওপর থেকে ছড়িয়ে দিন। আর অবশ্যই দিন ভাজা মশলা। এর সঙ্গে কয়েকটা ফুলকো লুচি হলে ব্যাপারটা জমে ক্ষীর হয়ে যাবে।