রবিবার, নভেম্বর 29, 2020

পেট কেটে শিশু চুরি !
পেট কেটে শিশু চুরি !

পেট কেটে শিশু চুরি !

  • scoopypost.com - Oct 20, 2020
  • আট মাসের অন্তঃসত্ত্বা মহিলাকে শ্বাসরোধ করে খুন করে গর্ভস্থ সন্তানকে চুরি করে আর এক মহিলা। খুন, শিশু চুরি ও অপহরণের দায়ে আমেরিকার কানাসাসের বাসিন্দা লিসা মন্টোগোমারিকে ফেডারেল কোর্ট মৃত্যুদণ্ড দিয়েছে। অ্যাটর্নি জেনারেল উইলিয়াম বার মন্তব্য করেছেন, " অভিযুক্ত পরিকল্পনা মাফিক অত্যন্ত জঘন্য অপরাধ করেছে। মৃত্যুদণ্ডই তার একমাত্র উপযুক্ত সাজা।" ২০০৭ সালে
    মিসৌরির জেলা আদালত যে রায় দিয়েছিল ফেডারেল কোর্ট সেই রায়ই বহাল রাখে। বিষ ইঞ্জেকশন দেওয়ার মাধ্যমে অপরাধী লিসা মন্টোগোমারির মৃত্যুদণ্ড কার্যকর করা হবে। আমেরিকায় ৬৭ বছর পর কোনও মহিলার মৃত্যুদণ্ডের আদেশ দিল আদালত। ১৯৭৬ সালে মৃত্যুদণ্ড তুলে দেওয়া হয় আমেরিকায় কিন্তু ডোনাল্ড ট্রাম্প ক্ষমতায় এলে তা ফিরিয়ে আনা হয়।
    ঘটনা ২০০৪ সালের। কানাসাস থেকে গাড়ি চালিয়ে মিসৌরিতে স্টিনেট -এর বাড়িতে কুকুরছানা আনতে গিয়েছিল লিসা। স্টিনেট তখন ৮ মাসের অন্তঃসত্ত্বা। ঘরে ঢুকে কথা বলতে বলতে আচমকা স্টিনেটকে ধাক্কা মারে লিসা। স্টিনেট বিছানায় পড়ে যায়। এরপর লিসা স্টিনেটের গলা, মুখ চেপে ধরে। বালিশ চাপা দিয়ে শ্বাসরোধ করে খুন করে স্টিনেটকে। পরের ঘটনা আরও ভয়ঙ্কর। রান্নাঘর থেকে ছুরি এনে অন্তঃসত্ত্বা স্টিনেটের পেট কেটে ফেলে এবং গর্ভস্থ শিশুকে বের করে নিয়ে পালায়। ওই শিশুটিকে নিজের সন্তান বলে সে চালানোর চেষ্টা করে। পুলিশি তদন্তে স্টিফেনের খুনের সূত্রে সবটা সামনে চলে আসে। ২০০৭ সালে মিসৌরির জেলা আদালত লিসাকে মৃত্যুদণ্ডের আদেশ দেয়। এরপর মৃত্যুদণ্ড থেকে রেহাই পেতে ফেডারেল কোর্টে আপিল, ক্ষমাভিক্ষা সমস্ত প্রক্রিয়া চলে। লিসার আইনজীবীরা দাবি করেন, সে ছোটবেলা থেকেই মানসিক রোগী। মানসিক অসুস্থতার জন্য তাকে মৃত্যুদণ্ড থেকে রেহাই দেওয়া হোক বলে আর্জি জানান তাঁরা। ফেডারেল কোর্ট জেলা আদালতের রায় বহাল রেখে মৃত্যুদণ্ডের আদেশ দেয়। ক্ষমাভিক্ষার আর্জিতেও সাড়া দেয়নি মার্কিন প্রশাসন। বিরলের মধ্যে বিরলতম অপরাধ উল্লেখ করে প্রায় সাত দশক পর মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে কোনও মহিলার মৃত্যুদণ্ড কার্যকর করতে চলেছে মার্কিন প্রশাসন।