বুধবার, এপ্রিল 14, 2021

শান্তিনিকেতনের অনুকরণ, মুক্ত প্রকৃতিতে পাঠ ত্রিপুরায়
শান্তিনিকেতনের অনুকরণ, মুক্ত প্রকৃতিতে পাঠ ত্রিপুরায়

শান্তিনিকেতনের অনুকরণ, মুক্ত প্রকৃতিতে পাঠ ত্রিপুরায়

  • scoopypost.com - Aug 22, 2020
  • শান্তিনিকেতনে কবি রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর চেয়েছিলেন প্রকৃতির কোলে শিক্ষাব্যবস্থা গড়ে তুলতে। মুক্ত শিক্ষাঙ্গন ভাবনা ছিল কবির মাথায়। সে কারণেই কবির শান্তিনিকেতন একেবারেই আলাদা। গাছপালায় মোড়া বিশ্বভারতী। করোনা পরিস্থিতিতে রবি ঠাকুরের মুক্ত শিক্ষাঙ্গনের ভাবনাই এবার অনুকরণ করতে চলছে অন্য রাজ্য। এই তালিকায় নাম লেখাল ত্রিপুরা। 

    সামাজিক দূরত্ববিধি পালন বিদ্যালয়ের ছোট্ট শ্রেণিকক্ষে সম্ভব হচ্ছে না। তাই সেখানে মুক্ত প্রকৃতিতে পঠনপাঠন শুরু হয়েছে। ৪,৪০০টি সরকারি স্কুলে মুক্ত প্রকৃতিতে পড়াশোনার ব্যবস্থা চালু হয়েছে। আর প্রায় ২৭,০০০ শিক্ষক শিক্ষিকা গাছের নীচে, খোলা আকাশে বাচ্চাদের পড়াচ্ছেন।


    সম্প্রতি রাজ্যের শিক্ষা দফতরের সমীক্ষায় জানা গিয়েছে, রাজ্যের প্রায় ৯৪,০১৩ জন ছাত্রছাত্রী কাছে ফোন নেই। আনুমানিক ১,৪২,২৩৮ জনের ছাত্রছাত্রীদের কোনও কেবল টিভি নেটওয়ার্ক নেই। তাই অনলাইন শিক্ষা এখানে সম্ভব নয়। সমস্যার সমাধানে রাজ্যের শিক্ষা দফতরের নতুন উদ্যোগ। করোনা পরিস্থিতিতে শিক্ষক ও ছাত্রদের অনুমপাত ১:৫। এই ব্যবস্থা করা হয়েছে মূলত নিম্নবিত্ত পরিবারের পড়ুয়া যাদের কাছে মোবাইল ফোন নেই তাদের জন্য।

    মুক্ত প্রকৃতিতে পড়াশোনার সময়  ছাত্রছাত্রীদের করোনা থেকে সুরক্ষিত থাকার নিয়ম শেখানো হচ্ছে। মাস্ক পরা, স্যানিটাইজার ব্যবহার করার নিয়ম শেখানো হচ্ছে। রাজ্যের শিক্ষামন্ত্রী রতনলাল নাথ জানিয়েছেন, সমস্ত ছাত্রছাত্রীরাই মাস্ক পড়ে আর স্যানিটাইজার ব্যবহার করে ক্লাস করছে। পাশাপাশি শিক্ষকদেরকেও বলা হয়েছে কোনও অভিভাবকদের তাঁদের ছেলেমেয়েদের এই মুক্ত প্রকৃতির ক্লাসে পাঠানোর জন্য জোর করা যাবে না। তাছাড়া অতিমারির পরিস্থিতিতে এই শিক্ষা পদ্ধতি কতটা গ্রহণীয় সেব্যাপারে অভিভাবক ও শিক্ষকদের মতামতের অপেক্ষা করছে রাজ্যের শিক্ষা দফতর।