বুধবার, এপ্রিল 14, 2021

মেয়েদের মতোই ছেলেরাও পাচার হয়
মেয়েদের মতোই ছেলেরাও পাচার হয়

মেয়েদের মতোই ছেলেরাও পাচার হয়

  • scoopypost.com - Dec 14, 2020
  • বয়ঃসন্ধির ছেলেদেরও পাচার করা হয়। মেয়েদের মতোই তাদের ওপরও নজর থাকে পাচারকারীদের। একাধিক সমাজকর্মী এবং স্বেচ্ছাসেবী সংগঠনের রিপোর্টে এই আশঙ্কার কথা তুলে ধারা হয়েছে। এ রাজ্যের দুই জেলায় পাচার হওয়া ছেলেদের সংখ্যা বেশি। পাচার হওয়া ছেলেদের বিভিন্ন শিল্পে কেনা গোলামের মতো খাটানো হয়। এই অবস্থায় বয়ঃসন্ধির ছেলেদের সচেতন করার ওপর জোর দেওয়া দরকার বলে মনে করে বিভিন্ন স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন।

    রিপোর্টে বলা হয়েছে পাচার হওয়া ছেলেদের গয়না শিল্প, জরি শিল্প , ম্যাসাজ পার্লার এমনকি মাদক পাচারের কাজেও ব্যবহার করা হয়। পাচার হওয়া ছেলেরা তাদের বাড়ির আর্থিক অবস্থার কারণেই বিভিন্ন প্রলোভনে পা দেয়। একবার পাচার হয়ে গেলে তাদের দিনে ১২ ঘন্টারও বেশি খাটানো হয় পরিবর্তে তাদের নামমাত্র টাকা দেওয়া হয় কখনও আবার কিছুই দেওয়া হয় না। ইন্টারন্যাশানাল জাস্টিস মিশন নামে এক স্বেচ্ছাসেবী সংস্থা সম্প্রতি তাদের রিপোর্টে এই সব কথা জানিয়েছে। এই সংস্থা শিশু পাচার রোধ এবং তাদের উদ্ধারের কাজ করে। গত বছরই তারা চেন্নাই পুলিশের সাহায্য নিয়ে এক গয়নার কারখানা থেকে ৬১জন ছেলেকে উদ্ধার করে। উদ্ধার করা ছেলেদের ৪৪ জন নাবালক এবং ৩৩জন দক্ষিণ চব্বিশ পরগনার ।

    কলকাতার মেরি ওয়ার্ড সোস্যাল  সেন্টার ঠিক করেছে তারা এক যুব বাহিনী গঠন করবে। তারা উত্তরচব্বিশ পরগনার বসিরহাটের বয়ঃসন্ধির ছেলেদের ওপর নজরদারি রাখবে এবং তাদের পাচার হওয়া রুখতে উপযুক্ত ব্যবস্থা নেবে। একই সঙ্গে তারা বোঝাবে যে তারাও পাচার হতে পারে।

    এই সংস্থা ২০১৫ সাল থেকে ডায়মন্ডহারবার এবং ক্যানিংএ মেয়েদের নিয়ে কাজ করছে। সেই কাজের সুবাদেই তারা বুঝতে পারে মেয়েদের মতোই পাচার হয়ে  যাচ্ছে ছেলেরাও। বিভিন্ন স্কুলের ড্রপআউট তালিকা দেখেই তারা এটা জানতে পারে।সেন্টারের ডিরেক্টর সিস্টার মোণিকা সুচিং বলছেন, পারিবারিক অর্থনৈতি কারণেই মূলত এরা পাচারের ফঁদে পড়ে যায়। তিনি বলেন এইসব ছেলেদের ওপর তাদের  প্রতিবেশীরাই নজর রাখে । এমনও হয় তাদের পরিবারেরই কেউ পাচার চক্রের সঙ্গে যুক্ত থাকে।

    ছেলেদের পাচার রুখতে গিয়ে সেন্টার সবচেয়ে বেশি যে সমস্যায় পড়ে তা হল হস্টেলের অভাব। পাচার হওয়া ছেলেদের যখন উদ্ধার করা হয় তখন তাদের রাখার জন্য হস্টেলের দরকার হয়। সেন্টারের সে রকম পর্যাপ্ত হস্টেল নেই।

    রাজ্যের শিশু অধিকার রক্ষা কমিশনের চেয়ারপার্সন অনন্যা চ্যাটার্জী চক্রবর্তী বলেছেন, সমাজে ভারসাম্য বজায় রাখতে গেলে মেয়েদের পাশাপাশি ছেলেদের নিয়েও প্রচার, সচেতনতা শিবির করা দরকার। ছেলেদেরও বোঝাতে হবে তাদেরও পাচার করা হতে পারে। ছেলেদের দিয়ে মাদক পাচারের মতো কাজও করানো হয়।