বুধবার, মে 12, 2021

২১শেই একুশের কাঠি বাজালেন মমতা
২১শেই একুশের কাঠি বাজালেন মমতা

২১শেই একুশের কাঠি বাজালেন মমতা

  • scoopypost.com - Jul 21, 2020
  • করোনা আবহে দলের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ রাজনৈতিক কর্মসূচি ২১ জুলাইয়ের ' শহিদ দিবস ' ভার্চুয়াল সমাবেশের মাধ্যমেই পালন করল তৃণমূল কংগ্রেস। মঙ্গলবার ভার্চুয়াল সমাবেশ থেকেই ২০২১ -এর বিধানসভা ভোটের ঢাকে কাঠি বাজিয়ে দিলেন দলনেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। একাধিকবার ' বহিরাগতরা বাংলা চালাবে না ' হুঙ্কার দিয়ে বাঙালি অস্মিতাকে খুঁচিয়ে দেওয়ারও চেষ্টা করেছেন তিনি। বিজেপি সম্পর্কে রাজ‍্যবাসীর উদ্দেশে তাঁর হুঁশিয়ারি, " জনগণ সাবধান। বিজেপির অনেক টাকা এবং ' গান ' রয়েছে। কোনওদিন যদি ভুল করে ওদের বিশ্বাস করেন তাহলে জীবনও যাবে, জীবিকাও যাবে। " রাজ‍্যবাসীর উদ্দেশে তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের আহ্বান, " আগামী ২১ মে বদলা নিয়ে বিজেপির জমানত জব্দ করে দিন। বাংলা বহিরাগতরা চালাবে না, বাংলার লোকই চালাবে, তা প্রমাণ করে দিতে হবে। "
    তবে তৃণমূল নেত্রীর গলায় মৃদু সংশয়ের সুরও শোনা গিয়েছে এদিন। ২০২১ -এর জন্য দেওয়া প্রতিশ্রুতিতে এই সংশয় ফুটে উঠেছে। তিনি বলেন, " আমি আগেই বলেছি আগামী ২১ জুন পর্যন্ত ব়াংলার গরিব মানুষ বিনামূল্যে রেশনের চাল, গম পাবেন। আজ বলছি, আমাদের সরকার থাকলে শুধু ২১ জুন নয়, সারাজীবন ফ্রি রেশন, শিক্ষা ও স্বাস্থ্য পরিষেবা পাবেন। " কীভাবে তা সম্ভব হবে তাও জানিয়েছেন তৃণমূল নেত্রী। রবিনহুড কায়দায় বলেছেন, " আমি ইনকাম করব অন্য জায়গা থেকে কিন্তু বাঁটোয়ারা করে দেব গরিবদের মধ‍্যে। মনে রাখবেন একটা গাছে অনেক ফল ধরে কিন্তু সেটা কেউ একা খায় না, সকলে মিলে খায়। "
    বাঙালি অস্মিতা খুঁচিয়ে তোলার পাশাপাশি সমস্ত বিরোধীদলের উদ্দেশে তৃণমূল নেত্রী একটি প্রশ্ন ভাসিয়ে দিয়েছেন। বিজেপির শাসনকালে রাজনৈতিক বিরোধীদের অস্তিত্ব যে সঙ্কটে ইঙ্গিত করে তিনি বলেছেন, " গুজরাট কী সব রাজ‍্যকে শাসন করবে ? তাহলে আর নির্বাচন কমিশনের দরকার কী? তুলে দিন। একটা দেশ, একটাই রাজনৈতিক দল থাকুক। " বস্তুতপক্ষে সরকারের অন্দরে ও বাইরে বিরোধী স্বর শুনতে বিজেপি যে প্রস্তুত যুক্তিগ্রাহ‍্য এমন কোনও প্রমাণ ক্ষমতায় আসার পর থেকে দেখা যায়নি। গায়ের জোরের বিরুদ্ধে কেউ কথা বলেন না উল্লেখ করে তৃণমূল নেত্রীর দাবি, " আমি ভয় পাই না। বন্দুকের সামনে দাঁড়িয়ে লড়াই করতে জানি। " স্মরণ করিয়ে দিয়েছেন, জখম বাঘ আরও ভয়ঙ্কর।