বুধবার, নভেম্বর 25, 2020

সর্বোচ্চ সম্মান নিউটাউনের
সর্বোচ্চ সম্মান নিউটাউনের

সর্বোচ্চ সম্মান নিউটাউনের

  • scoopypost.com - Sep 04, 2020
  • সোনার পর প্ল্যাটিনাম । দু'বছর আগে নিউটাউন জিতে নিয়েছিল স্বর্ণ সম্মান। এবার তারা জিতে নিয়েছে প্ল্যাটিনাম সম্মান, যা সর্বোচ্চ সম্মান বলেই বিবেচিত হয়। ইন্ডিয়ান গ্রিন  বিল্ডিং কাউন্সিল বা আই জি বি সি এই সম্মান দিয়েছে।আই জি বি সি বণিক সভা সি আই আই এর অধীন এক সংস্থা।  ২০০১ সালে এই সংস্থা গঠিত হয়। বিভিন্ন শহরকে তারা বিল্ডিং, স্কুল, স্বাস্থ্য কেন্দ্র, কেমন তার ওপর এক নম্বর দেয়। তবে সবচেয়ে গুরুত্ব দেওয়া হয় সেই শহরের পরিবেশ সচতনা এবং বাস্তুতন্ত্রের ওপর। এই সব কিছুর  নিরিখে ২০১৮ সালে নিউটাউন জিতে নেয় স্বর্ণ সম্মান শংশাপত্র। গ্রিন সিটি হওয়ার   জন্যই এই সম্মান দেওয়া হয়। নিউটাউন সেই সম্মান জিতে কলকাতা তথা রাজ্যের সম্মান বাড়িয়েছে বলে সরকারি স্তরে স্বীকার করা হচ্ছে। নিউটাউন কর্তৃপক্ষ সোনার প্রশংসা পেয়ে সন্তুষ্ট থাকেনি। এই শহরকে আরো ভালো কীভাবে করা যায় তা নিয়ে চিন্তা ভাবনা শুরু করে।

    এন কে ডি এ এবং হিডকোর চেয়ারম্যান দেবাশিস সেন বলেন,গত সপ্তাহে নগরোন্নয়ন মন্ত্রী ফিরহাদ হাকিমের হাতে শংশা পত্রের কপি তুলে দেওয়া হয়েছে। লকডাউনের আগেই সর্বোচ্চ সম্মানের জন্য আবেদন করা হয়েছিল।

    এই এলাকায় নতুন  ভবন তৈরি সময় বৃষ্টির জল ধরে রাখার ব্যবস্থা বাধ্যতামুলক করা হয়। সেইসঙ্গে সাইকেল এবং ইলেক্ট্রিক ভেহিকেলের জন্য পৃথক লেনের ব্যবস্থা করা হয়।ইলেক্ট্রিক ভেহিকেলের পার্কিং এর জন্য দুই শতাংশ জায়গা লাগবে। এনার্জি এফিসিয়েন্সি সার্ভিসেস লিমিটেড নামে এক সংস্থার সঙ্গে পি পি পি মডেলে এই ইলেক্ট্রিক ভেহিকেলের চার্জিং সেন্টার গড়ে তোলা হয়েছে। মোট আটটি এই ধরণের সেন্টার ইতিমধ্যেই তৈরি করা হয়েছে। এই সংস্থা আরও দুটি সেন্টার তৈরির জন্য আবেদন করেছে। এই সংস্থা তাদের ফুটপাতে হুইলচেয়ার চলার ব্যবস্থা করেছে।শুধু তাই নয় তারা অন্যভাবে সক্ষম মানুষদের জন্য দেশের প্রথম সেনসর পার্ক তৈরি করছে। নিউটাউন বর্জ্য প্রক্রিয়াকরণ এবং পৃথকীকরণের ব্যবস্থার জন্যও যথেষ্ঠ ভাল নম্বর পেয়েছে। এর পাশাপাশি তারা মেট্র রেল এবং মোনোরেলের যাত্রীদের জন্য পরিবেশ বান্ধব যানের ব্যবস্থা করেছে।  

    কলকাতা ছাড়া দেশের আর যে সব শহর প্ল্যাটিনাম সার্টিফিকেশন পেয়েছে তাদের মধ্যে রয়েছে চেন্নাই, মহারাষ্ট্রের অমরাবতী এবং গুজরাটের রাজকোট। এই সার্টিফিকেটের মেয়াদ পাঁচ বছর। দেবাশিস সেন জানিয়েছেন,শহরকে আরো সুন্দর করে তোলার এই প্রক্রিয়া তাঁরা চালিয়ে যাবেন।