রবিবার, অক্টোবর 25, 2020

নতুন অবতারে ফিরল বাজাজ চেতক
নতুন অবতারে ফিরল বাজাজ চেতক

নতুন অবতারে ফিরল বাজাজ চেতক

  • scoopypost.com - Jan 14, 2020
  • ২০০৬ সালের পর ২০২০। ১৪ বছর পর নতুন অবতারে ফিরে এল ‘হামারা বাজাজ’-এর জনপ্রিয় মডেল চেতক। গ্যাসোলিনের বদলে আধুনিক চেতকের হৃদয়ে এখন ইলেকট্রিক ইঞ্জিন।

    ভারতের টু হুইলার জগতে স্কুটার তৈরিতে একনম্বর ছিল বাজাজ। প্রিয়া, সুপার, চেতক, চেতক ক্লাসিকের মত মডেল একসময় দাপিয়ে বেড়াত দেশের শহর ও শহরাঞ্চলের রাস্তায়। কিন্তু এরপর বাজাজ স্কুটার তৈরি একেবারে বন্ধই করে দেয়। মোটরসাইকেলের বাজার ধরতে সংস্থার কারখানা থেকে একে একে বেরোতে থাকে পালসার, ডিসকভার, প্ল্যাটিনা, সিটি, ডমিনারের মত বাইক। অন্যদিকে নন-গিয়ারড স্কুটারের বাজার দখল করে হন্ডা, ইয়ামাহা, সুজুকির মত অটোমোবাইল জায়ান্টরা। সেই প্রতিযোগিতায় বাজাজ অবশ্য নাম লেখায় নি।

    কিছুদিন ধরেই চেতকের পুনরুজ্জীবন নিয়ে জল্পনা চলছিলই। গত বছরেই ইলেকট্রিক চেতককে বাজারে আনার কথা ঘোষণা করেছিল বাজাজ অটো। মঙ্গলবার সব জল্পনায় ইতি টেনে তাদের কাল্ট মডেল চেতকের ই-ভার্সন লঞ্চ করল বাজাজ অটো। চেতক অল ইলেকট্রিক স্কুটার। দুটি ভ্যারিয়ান্টে মিলবে গ্রিন এনার্জিতে চলা চেতক।মডেলদুটির নাম আরবান আর প্রিমিয়াম। আরবানের দাম এক্স শো রুম এক লক্ষ টাকা আর প্রিমিয়াম মডেলটির দাম এক লক্ষ পনেরো হাজার টাকা। বুকিং করা যাবে শুধুমাত্র অনলাইনে। বাজাজ অটোর ওয়েবসাইটের মাধ্যমে। বুকিং মূল্য ২০০০ টাকা। কেটিএম আউটলেট থেকেই ডেলিভারি করা হবে চেতক ই-স্কুটারের।

    চেতক প্রিমিয়াম মডেলটিতে ক্রেতারা পাবেন মেটালিক কালার অপশন, ডুয়েল টোন সিট, মেটালিক কালারের হুইলস আর ফ্রন্ট ডিস্ক ব্রেক। আরবান মডেলটিতে মিলবে না মেটালিক কালার আর ফ্রন্ট ডিস্ক ব্রেকের জায়গায় থাকবে ড্রাম ব্রেক।  

    নতুন চেতকে থাকছে ৩.৮/৪.১ কিলোওয়াটের ডুয়েল পাওয়ার ইলেকট্রিক মোটর। অটোমেটিক ট্রান্সমিশনের মাধ্যমে পিছনের চাকায় শক্তি যোগাবে এই মোটরটি। ইলেকট্রিক মোটর হলে কী হবে, সাডেন অ্যাক্সিলারেশন বা তৎক্ষণাত পাওয়ার বুস্টের জন্যে ‘কিক-ডাউন’ মোড-ও থাকছে। লিথিয়াম আয়ন ব্যাটারি প্যাক থেকে প্রয়োজনীয় শক্তি সঞ্চয় করবে চেতকের ইঞ্জিন। একবার চার্জ দিলে ইকো মোডে একটানা ৯৫ কিলোমিটার ও স্পোর্টস মোডে ৮৫ কিলোমিটার পর্যন্ত যেতে সক্ষম ই-চেতক। বাজাজের দাবি, চেতকের টপ স্পিড ৭৫ কিলোমিটার প্রতি ঘন্টা। সংস্থার তরফে ব্যাটারিতে তিন বছর অথবা পঞ্চাশ হাজার কিলোমিটারের ওয়্যারান্টি দেওয়া হচ্ছে।

    চেতকের ফুল ডিজিটাল ইনস্ট্রুমেন্ট ক্লাস্টার নজরকাড়া। এছাড়াও সব সুইচ-গিয়ারেই আছে ফেদার টাচ কন্ট্রোল। রিয়ার ভিউ মিরর থেকে পিলিয়ন ফুট-রেস্ট সবেতেই প্রিমিয়াম ছোঁয়া রাখার চেষ্টা করেছে বাজাজ। চেতক কিনলে এক বছর বিনামূল্যে ইন্টারনেট ডেটাও দিবে বাজাজ। যা থেকে স্কুটারটির চার্জিং স্ট্যাটাস, লোকেশন, ব্যাটারি ফুরোতে কত সময় লাগবে বা রাইডার কতদূর যেতে পারবেন সবই মোবাইল অ্যাপের মাধ্যমে মনিটর করা সম্ভব।