বুধবার, নভেম্বর 25, 2020

করোনার কোপে পড়ল টাকা, সেনসেক্স
করোনার কোপে পড়ল টাকা, সেনসেক্স

করোনার কোপে পড়ল টাকা, সেনসেক্স

  • scoopypost.com - Mar 12, 2020
  • করোনার কালো ছায়া এবার দেশের অর্থনীতিতেও। করোনার কোপে পড়ে দেশে মন্দার মেঘ আরও ঘনিয়ে উঠছে। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (হু) ইতিমধ্যেই করোনা সংক্রমণকে ‘প্যানডেমিক’ অর্থাৎ অতিমহামারী বলে ঘোষণা করেছে। বিশ্ববাজারে ইতিমধ্যেই তার প্রভাব পড়তে শুরু করেছে। বৃহস্পতিবার টাকার দাম পড়ার পাশপাশি ধস নামে শেয়ার বাজারেও। এদিন বাজার খুলতেই ডলারের সাপেক্ষে টাকার দাম একধাক্কায় পড়ে ৮২ পয়সা। ডলার গিয়ে দাঁড়ায় ৭৪ টাকা ৫০ পয়সা। বুধবার যা ছিল ৭৩ টাকা ৬৮ পয়সা।

    এদিন শেয়ার বাজারে সূচকের সর্বোচ্চ পতন হয় ৩২০০ পয়েন্ট। বাজার বন্ধের সময় ২৯১৯.২৬ পয়েন্ট পড়ে তা তামে ৩২,৭৭৮ পয়েন্টে। পতনের হার ৮.১৮ শতাংশ। এদিন শেয়ার বাজার খুলতে সূচক একধাক্কায় ১৬৭২ পয়েন্ট নেমে দাঁড়ায় ৩৪০২৫ পয়েন্ট। বেলা বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে সূচক আরও পড়তে শুরু করে থামে ৩৩ হাজারের সামান্য উপরে। পতনের হার প্রায় ৭.৫ শতাংশ। রিয়েল এস্টেট, রিটেল ক্ষেত্রে ব্যবসার হাল এতই খারাপ যার প্রভাব পড়েছে শেয়ার বাজারে। প্রভাব পড়েছে পর্যটনেও। ইওরোপ থেকে পর্যটকদের যাতায়াত নিষিদ্ধ করেছে আমেরিকা। বিদেশি পর্যটকদের ভারতে আসায় রাশ টেনেছে ভারত সরকারও। কূটনৈতিক ও নিতান্ত প্রয়োজনীয় কয়েকটি ক্ষেত্র ছাড়া ভিসা বিদেশিদের অনুমোদন করা হবে না বলে জানিয়েছে বিদেশ মন্ত্রক। এদিকে বিদেশি প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগকারীদের মধ্যে ইতিমধ্যেই শেয়ার বিক্রির হিড়িক পড়ে গিয়েছে। বুধবারই ৩৫১৫ কোটি টাকার শেযার বিক্রি করেছে প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগকারীরা। বৃহস্পতিবার মুম্বইয়েও শেয়ার সূচক পড়ে যায় ২৬০০ পয়েন্ট। নিফটি সূচক ৬৫০ পয়েন্ট পড়ে নেমে যায় ৯৭০০ পয়েন্টে। ভারতের পাশাপাশি আন্তর্জাতিক শেয়ার বাজারেও করোনার প্রভাব পড়তে শুরু করেছে। আমেরিকার এনওয়াইএসইও, ন্যাসডাক, জাপানের নিকেই শেয়ার বাজারেও শেয়ার পতন অব্যাহত। একমাত্র আন্টার্কটিকা ছাড়া বিশ্বের সমস্ত মহাদেশেই করোনা সংক্রমণ ছড়িয়ে পড়েছে। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা করোনা সংক্রমণকে ‘প্যানডেমিক’ ঘোষণা করায় গোটা বিশ্বেই শেয়ার বাজারে ধস নামতে শুরু করেছে। এই পতন কোথায় গিয়ে থামবে তা নিয়ে কপালে চিন্তার ভাঁজ ব্রোকার মহলে। সাধারণ মানুষ থেকে প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগকারী সকলের মধ্যেই শেয়ার বিক্রির হিড়িক পড়ে যাওয়ায় শেয়ার বাজারে আরও ধস নামার আশঙ্কায় বিশেষজ্ঞরা।