রবিবার, অক্টোবর 25, 2020

ফ্লিপকার্ট ও অ্যামাজনে বেলাগাম ছাড়ে লভ্যাঙ্ক আশাতীত
ফ্লিপকার্ট ও অ্যামাজনে বেলাগাম ছাড়ে লভ্যাঙ্ক আশাতীত

ফ্লিপকার্ট ও অ্যামাজনে বেলাগাম ছাড়ে লভ্যাঙ্ক আশাতীত

  • scoopypost.com - Oct 12, 2019
  • গত মাসের শেষের দিক থেকে চলতি মাসের ৪ তারিখ পর্যন্ত প্রায় সপ্তাহখানেক ধরে  অনলাইন ক্রেতাদের বিপুল পরিমাণ ছাড় দিয়ে বিপণন সাইটগুলির শীর্ষে উঠে এলো ফ্লিপকার্ট, অ্যামাজন। রেডসিয়ার কনসাল্টিং-এর প্রতিষ্ঠাতা এবং সিইও শ্রীঅনিল কুমার বলেছেন যে, উৎসবের মরসুমে প্রথম পর্যায়ে অনলাইন বিপনন সংস্থাগুলি দ্রব্যের ওপর যে ব্যাপক পরিমাণে ছাড় দিয়েছে তাতে মোট ব্যবসার পরিমাণ ৩৩০ কোটি মার্কিন ডলার বা ১৯০০০ কোটি টাকা হয়েছে। সমাজের একটা বিরাট অংশ যারা অনলাইন কেনাকাটা করছেন তাঁদের মধ্যে বিভিন্ন ইলেকট্রনিক গ্যাজেটস সহ হাই প্রাইসেস দ্রব্যের প্রতি প্রবল ঝোঁক দেখা যায় এই অনলাইন বিপণনের ক্ষেত্রে। কারণ একটাই, তা হল বিরাট অংকের পরিমাণ ছাড় পাওয়া সম্ভব শুধু অনলাইনেই। মোট বিক্রির ওপর সমীক্ষা করে দেখা গেছে যে ফ্লিপকার্টের বিক্রিই প্রায় ৬৫ শতাংশের উপর। গত বছরের মতো এবছরেও অনলাইনে সবচেয়ে বেশি বিক্রি হয়েছে মোবাইল, ট্যাব ইত্যাদির মতো ডিভাইস। বিক্রিত অর্থের ৫৫ শতাংশ মুনাফাই এসেছে মোবাইল থেকে। উৎসবের সেল ধরলে অক্টোবর মাসের শেষ অবধি গোটা মরসুমে অনলাইন সংস্থাগুলির বিক্রির পরিমাণ প্রায় ৩৯ হাজার কোটি টাকার মতন হতে পারে বলে জানিয়েছে রেডসিয়ার। এখনো পর্যন্ত ফ্লিপকার্ট এবং অ্যামাজন এই দুটি বিপণন সংস্থাই প্রতিযোগিতার বাজারে হাড্ডাহাড্ডি লড়াই করছে। মোট বিক্রির প্রায় ৯৩ শতাংশ অর্থই রয়েছে এই দুই সংস্থার কোষাগারে।

    দেশের প্রতিকূল অর্থনৈতিক পরিবেশেও দাঁড়িয়েও এই বিপণন সংস্থা দুটি দুর্গাপুজো ও নবরাত্রি উৎসবের আগে প্রতি বছরের মতো এই বছরেও ‘বিগ বিলিয়ন ডে’, ‘গ্রেট ইন্ডিয়ান ফেস্টিভ্যাল’-এর আয়োজন করবে তা অনেকের কাছেই আশাতীত ছিল। রেডসিয়ারের সমীক্ষা অনুযায়ী গত বছরের তুলনায় এইবছরে তাঁদের ব্যবসার পরিমাণ প্রায় ৩০ শতাংশ বেড়েছে যা অনেকেরই নজর কেড়েছে।