বুধবার, নভেম্বর 25, 2020

পরিষেবা বন্ধ করল ফ্লিপকার্ট, বিগবাস্কেট
পরিষেবা বন্ধ করল ফ্লিপকার্ট, বিগবাস্কেট

পরিষেবা বন্ধ করল ফ্লিপকার্ট, বিগবাস্কেট

  • scoopypost.com - Mar 25, 2020
  • ২১ দিনের লকডাউনে খাবারের অভাব হবে না অভয় দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী থেকে মুখ্যমন্ত্রী। অনলাইন সংস্থাগুলোতে নিত্য প্রয়োজনীয় জিনিস মিলবে এমন আশ্বাসও মিলেছে। তবে বাস্তবে ছবিটা দেখা গেল উলটো। কোথাও প্রশাসনিক অতিসক্রিয়তা, কোথাও জিনিসপত্র নিয়ে আসা-নিয়ে যাওয়ার অসুবিধার কারণ দেখিয়ে ঝাঁপ বন্ধ করল ই-কমার্স সংস্থাগুলো।

    এর মধ্যে রয়েছে ফ্লিপকার্ট ও বিগবাস্কেটও। এই সব অনলাইন ডেলিভারি সংস্থাগুলোর অভিযোগ, তারা পরিস্থিতির চাপে পড়ে পরিষেবা বন্ধ করে দিতে বাধ্য হচ্ছে। কোথাও প্রশাসন অতি সক্রিয় হয়ে ডেলিভারিতে বাধা দিচ্ছে। কোথাও আবার তাদের গুদাম বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। বাইরে থেকে গাড়ি বোঝাই করে মালপত্র আনা এখন খুব সমস্যার। পুলিশ প্রশাসন গাড়ি আটকাচ্ছে।গ্রাহকের কাছে মাল পৌঁছে দেওয়ায় সমস্যা হচ্ছে। বাধ্য হয়েই তাঁরা ব্যবসা বন্ধ করার কথা ভাবছেন।

    একটি সংস্থা জানিয়েছে, এমনিতেই অ্যাপ থেকে অত্যাবশ্যকীয় জিনিস ছাড়া অন্য জিনিস সরিয়ে দেওয়া হয়েছে। কিন্তু বাস্তব পরিস্থিতিতে গ্রাহককে জিনিসের ডেলিভারির বিষয়ে নিশ্চিত করা যাচ্ছে না। কারণ, কলকাতা, মুম্বই, দিল্লি, আমেদাবাদে তাঁদের সংস্থার গোডাউন বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। পণ্য পরিবহণের গাড়িও আটকাচ্ছে পুলিশ। অভিযোগ, অত্যাবশ্যকীয় পণ্যে ছাড়ের কথা বলা হলেও বাস্তবে বাধার মুখে পড়তে হচ্ছে তাদের।

    সে কারণেই গ্রাহক কিছু অর্ডার করলেই জানিয়ে দেওয়া হয়েছে ডেলিভারিতে অতিরিক্ত সময় লাগতে পারে এমনকী মাঝপথে অর্ডার বাতিলও হতে পারে।

    বর্তমান পরিস্থিতিতে দোকান-বাজার যাওয়াতেই সংক্রমণের আশঙ্কা থাকছে। তাছাড়া মুদির দোকান থেকে বাজার লম্বা লাইন। সেক্ষেত্রে গ্রোফার্স, বিগ বাস্কেটের মতো সংস্থার দ্বারা এখটু সুবিধে মিলবে ভেবছিল জনতা। কিন্তু সেখানেও আশাহত হতে হচ্ছে। সংস্থার বক্তব্য, পুলিশ-প্রশাসনের সহযোগিতা থাকলে তারা আবার কাজ শুরু করতে পারে।