রবিবার, অক্টোবর 25, 2020

মোদি আমাজন কর্তা বৈঠক!
মোদি আমাজন কর্তা বৈঠক!

মোদি আমাজন কর্তা বৈঠক!

ফটো ক্রেডিট : File Photo

  • scoopypost.com - Jan 10, 2020
  • পরের সপ্তায় ভারতে আসছেন আমাজনের প্রতিষ্ঠাতা ও সিইও জেফ বেজোস। ছোট-মাঝারি বাণিজ্য সংস্থায় প্রযুক্তি কাজে লাগানো নিয়ে আলোচনা SMBhav-এ যোগ দিতে এলেও প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির সঙ্গে সাক্ষাত করতে পারেন আমাজন কর্তা। দিল্লিতে ১৫ জানুয়ারিতে থেকে দুদিন চলবে এই আলোচনা।  আমাজন-এর ব্যবসায় উল্লেখযোগ্য বৃদ্ধি ঘটেছে ভারতে। ফলে দেশীয় ব্যবসায়িক সংস্থাগুলির বিরোধিতা ও প্রতিরোধের মুখে পড়তে হয়। দেশীয় সংস্থাগুলির অভিযোগ, প্রতিযোগিতার নিয়ম ভেঙে বেআইনিভাবে ব্যবসা করছে ই-কমার্স সংস্থাগুলি। তাদের আরও অভিযোগ, আমাজন, ওয়ালমার্ট মালিকানাধীন ফ্লিপকার্ট সহ অন্যান্য ই-কমার্স সংস্থা পণ্য বিপণনে এত বেশি ছাড় দিচ্ছে যে তাদের ব্যবসা মার খাচ্ছে।         দেশীয় সংস্থাগুলির অভিযোগের জেরে, বিদেশি বিনিয়োগ রয়েছে এমন ই-কমার্স সংস্থার জন্য গতবছরই বিধি কড়া করেছে সরকার। বিধিতে এক্সক্লুসিভ মার্কেটিং বা একান্ত বিপণনের ওপর নিষেধাজ্ঞা আনা হয়েছে। সেইসঙ্গে বিধিতে বলা হয়েছে, এমন কোনও সংস্থার জিনিস এই প্ল্যাটফর্মে বিক্রি করা যাবে না যেখানে ই-কমার্স সংস্থারই অংশিদারিত্ব রয়েছে। এই নিষেধাজ্ঞার জেরে আমাজন তাদের যৌথ উদ্যোগ সংস্থাগুলির ইতিমধ্যে পুনর্গঠন করেছে।

    সরকারি আধিকারিকদের সঙ্গে বৈঠকে ই-কমার্স সংস্থার ওপর নিয়ন্ত্রণ বিষয়ে আলোচনা করতে পারেন আমাজন কর্তা জেফ বেজোস। প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির সঙ্গেও তাঁর বৈঠক হতে পারে যদিও  আমাজনের তরফে স্পষ্টভাবে কিছু বলা হয়নি। পাঁচবছর আগে ২০১৪ সালে ভারতে এসেছিলেন আমাজন কর্তা। তখন তিনি প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির সঙ্গে সাক্ষাত করেছিলেন। এদিকে দেশের অর্থনৈতিক বেহাল দশা নিয়ে লাগাতার বিঁধে চলেছে বিরোধী দলগুলি। যদিও আর্থিক অবস্থা নিয়ে বহুদিন কোনও রা কাড়েননি প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। সম্প্রতি অবশ্য স্বীকার করেছেন দেশের আর্থিক হাল খারাপ। যায় কোথায়! বিরোধীরা আরও অক্সিজেন পেয়েছে। সিএএ, এনআরসি এবং এনপিআর নিয়ে দেশব্যাপী আন্দোলন ও বিরোধিতার আবহে বেহাল আর্থিক দশা নিয়ে বিরোধীরা বাজেটের মুখে যাতে সরকারকে আরও প্যাঁচে ফেলতে না পারে সেজন্য বৃহস্পতিবার অর্থাৎ গতকালই প্রধানমন্ত্রী স্বয়ং চার মন্ত্রী, অর্থমন্ত্রকের কর্তা ও অর্থনীতিবিদদের সঙ্গে বৈঠক করেছেন। এখন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির সঙ্গে আমাজন কর্তা বৈঠক করলে নতুন বিনিয়োগের আশ্বাসে দেশীয় অর্থনীতিতে ক্ষীন কোনও রুপোলিরেখা দেখা যাবে কিনা বাণিজ্যমহলে চর্চার বিষয়।